আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > আইন-মানবাধিকার > শিশু নাদিরা হত্যায় দুই নারীর যাবজ্জীবন

শিশু নাদিরা হত্যায় দুই নারীর যাবজ্জীবন

জেলা জজ আদালত ভবন, ঠাকুরগাঁও

প্রতিচ্ছবি ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি:

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলায় শিশু নাদিরা বেগম হত্যায় প্রতিবেশি মাজেদা খাতুন (৪৫) ও তহমিনাকে (৪২) যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ঠাকুরগাঁও অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোঃ হায়দার আলী এ রায় ঘোষণা করেন। এছাড়াও দুই নারী আসামীকে ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ড ও অনাদায়ে আরও ৩ মাসের সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেছে আদালত। রায় ঘোষণার সময় আসামী দুইজন উপস্থিত ছিলেন।

মামলার বিবরণে বলা হয়, বসতভিটার ৫ শতক জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলার চাঁদগাঁও গ্রামের বাসিন্দা মহসিন আলীর সঙ্গে বিরোধ চলছিল প্রতিবেশি মাজেদা খাতুনের।

এরই জের ধরে মহসিনকে ফাঁসানোর জন্য গত ২০১৪ সালের ১৭ এপ্রিল দুপুরে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে প্রতিবেশী আব্দুল কুদ্দুসের ৫ বছরের কন্যাশিশু নাদিরা বেগমকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায় আসামী মাজেদা খাতুন ও তাঁর সৎ ভাইয়ের স্ত্রী তাহমিনা।

এরপর পূর্বপরিকল্পিতভাবে মাজেদা খাতুন ও তাহমিনা ওই কন্যা শিশুকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে বাড়ির পার্শ্বে ভুট্টা ক্ষেতে ফেলে রাখে। এরপর আসামীরা এলাকায় গুজব ছড়ায় শিশু নাদিরাকে মহসিন হত্যা করেছে। খবর পেয়ে পীরগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে শিশু নাদিরা বেগমের লাশ উদ্ধার করেন।

গত ২০১৪ সালের ১৭ এপ্রিল শিশু নাদিরা বেগমের বাবা আব্দুল কুদ্দুস বাদী হয়ে মহসিন আলীকে আসামী করে পীরগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

গত ২০১৪ সালের ১৮ এপ্রিল মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পীরগঞ্জ থানার এস.আই মোঃ ওয়াহেদ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মামলার স্বাক্ষী মাজেদাকে নিজ হেফাজতে নেন। এসময় শিশু নাদিরাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে বলে স্বীকার করেন মাজেদা খাতুন ও তাঁর সৎ ভাইয়ের স্ত্রী তহমিনা।

পরদিন ১৯ এপ্রিল মাজেদা বেগম ঠাকুরগাঁও বিজ্ঞ ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে।

এরপর মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মো: ওয়াহেদ তদন্ত শেষে গত ২০১৪ সালের ১২ জুন আদালতে আসামী মাজেদা খাতুন ও তহমিনাকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশীট দাখিল করে। সেই সাথে মামলার সাথে সম্পৃক্ত না থাকায় আসামী মোঃ মহসিন আলীকে মামলা হতে অব্যাহতির জন্য আদালতে প্রার্থনা করে।

পরবর্তীতে আদালত চার্জশীট গ্রহণ করে মামলা হতে মহসিন আলীকে অব্যাহতি প্রদান করে।

পরবর্তীতে মামলাটি বিচার নিষ্পত্তির জন্য গত ২০১৪ সালের ২২ জুলাই ঠাকুরগাঁও বিজ্ঞ দায়রা আদালতে মামলাটি প্রেরণ করেন। গত ২০১৫ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি আদালত আসামী মাজেদা খাতুন ও তহমিনার বিরুদ্ধে দন্ডবিধির ৩০২/২০১/৩৪ ধারায় অভিযোগ আমলে নেন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আব্দুল হামিদ বলেন, স্বাক্ষ্যপ্রমাণ শেষে আসামী মাজেদা খাতুন ও তহমিনা দন্ডবিধির ৩০২ ধারার অপরাধে দোষী সাব্যস্ত হলে ঠাকুরগাঁও অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোঃ হায়দার আলী তাদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের রায় ঘোষণা করেন। সেই সাথে দুই আসামীকে ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ডে দন্ডিত ও অনাদায়ে আরো ৩ মাসের সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়।

জুনাইদ কবির/এ আর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে