আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > অপরাধ > যৌতুক না পেয়ে গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা

যৌতুক না পেয়ে গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা

যৌতুক না পেয়ে গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা

প্রতিচ্ছবি নোয়াখালী প্রতিনিধি:

নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলার নোয়াখলা ইউনিয়নে যৌতুক না দেয়ায় আঁখি (২০) নামে এক গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে স্বামী ও শ্বাশুড়ীর বিরুদ্ধে। ঘটনার পর থেকেই আঁখির স্বামী ও শ্বাশুড়ী পলাতক রয়েছেন।

বুধবার রাতে চাটখিল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে নিহত গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। একই দিন সন্ধ্যায় উপজেলার নোয়াখলা ইউনিয়নের কড়িহাটি গ্রামে ওই গৃহবধূর স্বামীর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। নিহত আঁখি উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের যশোড়া গ্রামের ইউছুপ মিয়ার মেয়ে ও একই উপজেলার নোয়াখলা ইউনিয়নের কড়িহাটি গ্রামের মানিক হোসেনের স্ত্রী।

আঁখির বড় বোন লাকী ও খালা আয়েশা বেগম জানান, গত তিন মাস পূর্বে কড়িহাটি গ্রামের মীর হোসেনের ছেলে মানিক হোসেনের সাথে আঁখির বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই স্বামী মানিক ও তার পরিবারের লোকজন বিভিন্ন সময় আঁখিকে বাবার বাড়ি থেকে যৌতুকের টাকা নিয়ে আসার জন্য চাপ দিতে থাকে। এতে আঁখি অপারগতা প্রকাশ করলে তাকে তার স্বামী মানিক ও শ্বাশুড়ী প্রায়ই মারধর করতো।

এক পর্যায়ে বুধবার সন্ধ্যায় পুনরায় আঁখির স্বামী, শ্বাশুড়ী সহ পরিবারের অন্যরা একত্রিত হয়ে যৌতুকের জন্য আঁখিকে বেদম পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে তারা আঁখিকে চাটখিল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আঁখিকে মৃত ঘোষণা করলে মৃতদেহ ফেলে তার স্বামী ও শ্বাশুড়ী পালিয়ে যায়। পরে তারা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ চাটখিল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে মৃতদেহ উদ্ধার করে থানা নিয়ে যায় এবং তাদেরকে লিখিত অভিযোগ দিতে বলেছে।

চাটখিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জহিরুল আনোয়ার জানান, খবর পেয়ে নিহতের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতের পরিবারকে লিখিত অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (০৯ নবেম্বর) সকালে নিহতের মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রির্পোটের পর বিস্তারিত বলা যাবে।

আসাদুজ্জামান কাজল/এ আর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে