আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > খুলনা > শার্শায় কলেজ ছাত্রীকে সিএনজি থেকে ফেলে দেয়ায় সড়ক অবরোধ

শার্শায় কলেজ ছাত্রীকে সিএনজি থেকে ফেলে দেয়ায় সড়ক অবরোধ

শার্শা থানা

প্রতিচ্ছবি বেনাপোল প্রতিনিধি:

শার্শায় সরকারি বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মাদ ডিগ্রি কলেজের ছাত্রীকে সিএনজি থেকে ফেলে দেয়ায় নাভারণ-কাশিপুর সড়কে ছাত্র-ছাত্রীরা ৪ ঘন্টা ধরে অবরোধ করে রাখে। ফলে সকাল ৮টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত অবরোধে যানজটের সৃষ্টি হয়।

কলেজের ছাত্র ছাত্রীরা জানান, রবিবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে কলেজের একাদশ শ্রেণীর ছাত্রী রাণী খাতুন (১৭) গোড়পাড়া বাজার হতে একটি সিএনজিতে উঠতে যায়। গাড়িতে পা রাখতেই চালক সিএনজি ছেড়ে দেয়। উক্ত ছাত্রীর হাত গেটে আটকে গেলে কিছু পথ টেনে হেচড়ে নেয়ার পর ছাত্রী মুখ থুবড়ে মাটিতে পড়ে যায়। এসময় তার একটি দাঁত ভেঙ্গে যায় এবং হাত-পা কেটে যায়।

এ খবর কলেজে পৌছে গেলে ছাত্র-ছাত্রীরা উত্তেজিত হয়ে পড়ে। তারা সকাল ৮টায় কলেজ গেটে সকল গাড়ি চলাচল বন্ধ করে দিয়ে রাস্তার উপর টায়ার জ্বালিয়ে প্রতিবাদ মিছিল করতে থাকে। ফলে যানজটের সৃষ্টি হওয়ায় পথচারীরা ভোগান্তিতে পড়ে।

খবর পেয়ে গোড়পাড়া ফাঁড়ি পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে যেয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে কলেজ কর্তৃপক্ষ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সিএনজি সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সাথে বৈঠকে ফলপ্রসু আলোচনা হওয়ায় ছাত্রছাত্রীরা অবরোধ প্রত্যাহার তুলে নেন।

শার্শা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মসিউর রহমান বলেন, সংবাদ পেয়ে গোড়পাড়া ফাঁড়ি পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে পাঠিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়।

সরকারি বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মাদ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) গোলাম মাসুদ মজুমদার বলেন, ঘটনা শুনে আমরা কলেজের পক্ষ হতে রাণীকে দেখতে যাই। পরে কলেজ কর্তৃপক্ষ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মধ্যস্থতায় সোমবার সমাধানের আশ্বাস করলে ছাত্র-ছাত্রীরা সড়কে অবরোধ তুলে নেয়।

সাজেদুর রহমান / আর এইচ

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে