আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > অপরাধ > মারধরের পর পুলিশের অস্ত্র ছিনতাই অতঃপর পুরুষ শূণ্য টেংরা

মারধরের পর পুলিশের অস্ত্র ছিনতাই অতঃপর পুরুষ শূণ্য টেংরা

শার্শা থানা

প্রতিচ্ছবি বেনাপোল প্রতিনিধি:

ফেনসিডিল উদ্ধার করতে গিয়ে মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে হলিউডি স্ট্যাইলে মারপিটে জড়িয়ে পরেন শার্শা থানার দুই এএসআই আলাউদ্দিন ও কামরুজ্জামান। দুজনকেই পিটিয়ে আহত করে অস্ত্র ও হ্যান্ডকাফ ছিনিয়ে নেয় স্থানীয় ইউপি সদস্য মুজামের লোকজন।

এ ঘটনায় পুলিশ চোরাকারবারী সন্দেহে ৫ জনকে আটক করে। যদিও পরে দুজনকে ছেড়ে দেয়া হয়। যশোরের শার্শা উপজেলার টেংরা গ্রামে অভিযান এখনও অব্যহত থাকায় পুরুষ শূণ্য হয়ে পড়েছে এলাকাটি এবং বিরাজ করছে থমথমে পরিবেশ।

আহত দুই এএসআই নাভারণ বুরুজবাগান স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

স্থানীয়রা জানায়, শুক্রবার রাতে শার্শা থানার ২ দারোগা টেংরা গ্রামে এসে মাদক ব্যবসায়ী ও মুজাম বাহিনীর সক্রিয় সদস্য দুঃক্ষে (৪২) কে আটক করে হ্যান্ডকাপ পরায়। এসময় ইউপি সদস্য মুজাম বাহিনীর মুজাম ও দলের সেকেন্ড ইন কমান্ড জসিম উদ্দিনের নের্তৃত্বে প্রায় ৩০/৪০ জন সদস্য এএসআই আলাউদ্দিন ও এএসআই কামরুজ্জামান কে পিটিয়ে আহত করে।

হ্যান্ডকাপ পরা অবস্থায় পালিয়ে যায় মাদক চোরাকারবারী দুঃক্ষে। হামলায় আহত কামরুজ্জামানের অস্ত্রটিও কেড়ে নেই মুজাম বাহিনীর এক সদস্য। খবর পেয়ে শার্শা থানার অফিসার ইনচার্জ এম মসিউর রহমান, বাগ আঁচড়া পুলিশ  ফাঁড়ির অফিসার ইনচার্জ জিয়াউর রহমান জিয়া ও গোড়পাড়া ফাঁড়ির ইনচার্জ লুৎফর রহমান সহ বিপুল পরিমান পুলিশ সদস্য নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। চারিদিকে অভিযান চালিয়ে এএসআই কামরুজ্জামানের অস্ত্রটি উদ্ধার হয়।

নিজেদের সহকর্মিকে আহত করায় প্রতিশোধ হিসেবে বাজারের অসংখ্য মানুষকে পিটিয়ে আহত করে পুলিশ। পুরো এলাকায় এখনও বিরাজ করছে গ্রেফতারি আতঙ্ক। পুলিশের হাতে আটকের ভয়ে গ্রামের যুবকরা প্রায় সবাই বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে। এলাকা এখন পুরুষ শূন্য।

শার্শা থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই মামুনুর রশিদ জানান, মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে আমাদের একটু ঝামেলা হয়েছে আমরা এখন সবাই সেখানে খুব ব্যস্ত। আমাদের কোন কিছু খোয়া যায়নি। এঘটনায় আমরা মুজামসহ ৫ জনকে আটক করেছিলাম। তার মধ্যে ২ জনকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।’

ঘটনার বর্ননায় আহত এএসআই আলাউদ্দিন সাংবাদিকদের জানান, ফেনসিডিল উদ্ধার করতে গিয়ে দুঃক্ষে কে আটক করে হ্যান্ডকাপ পরানো হয়। হ্যান্ডকাপ পরা অবস্থায় সে পালিয়ে যায়।

সাজেদুর রহমান / আর এইচ/ এম এম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে