আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > জাতীয় > রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়াই একমাত্র সমাধান: সুষমা

রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়াই একমাত্র সমাধান: সুষমা

বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী ও ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদবক:

রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়াই একমাত্র সমাধান বলে মন্তব্য করেছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। রোহিঙ্গা সঙ্কট নিরসনে কফি আনান কমিশনের সুপারিশের বাস্তবায়ন ভারত দেখতে চায় বলে জানিয়েছেন তিনি। আর রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারের ওপর চাপ দিতে ভারতকে অনুরোধ জানিয়েছে বাংলাদেশ।

জ্বালানি ও তথ্য বিষয়ে ভারতের সঙ্গে একটি চুক্তি করেছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে চতুর্থ যৌথ পরামর্শক কমিশনের (জেসিসি) বৈঠক শেষে রোববার (২২ অক্টোবর) বিকেলে রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রীর উপস্থিতিতে এ চুক্তি সই হয়।

যৌথ পরামর্শক কমিশনের (জেসিসি) বৈঠক শেষে এক যৌথ ব্রিফিংয়ে কথা বলেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী ও ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ।

বৈঠকশেষে সুষমা রোহিঙ্গা ইস্যুতে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, ‘তাদের ফিরিয়ে নেয়াই একমাত্র সমাধান।’

সুষমা স্বরাজ আরো বলেন, বাংলাদেশ-ভারতের চ্যালেঞ্জগুলো একই। সন্ত্রাসবাদ, চরমপন্থী ও মৌলবাদিতা দুই দেশের চ্যালেঞ্জ। সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের নেওয়া জিরো টলারেন্স নীতির সঙ্গে আমরাও একমত  হয়েছি।

এ সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী বলেন, ‘বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের ফেরত নেয়ার বিষয়ে ভারত যেনো মিয়ানমারের প্রতি চাপ সৃষ্টি করে সেজন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে। ‘ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের মাটি ব্যবহার করতে দেয়া হবে না। প্রতিবেশী দুই দেশই পরস্পরের বিশ্বস্ত বন্ধু।’

রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে বিকেল চারটা থেকে সাড়ে পাঁচটা পর্যন্ত এ বৈঠক চলে। বৈঠক শেষে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী সাংবাদিকদের বৈঠকের বিষয়ে জানান।

এর আগে বেলা পৌনে দুইটার দিকে ভারতীয় বিমানবাহিনীর বিশেষ ফ্লাইটে করে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকায় পৌঁছেছেন। জেসিসি বৈঠকে যোগ দিতে তাঁর ঢাকায় আসা।

সন্ধ্যা ছয়টায় গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন সুষমা স্বরাজ। এরপর সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় তাঁর সৌজন্যে সোনারগাঁও হোটেলে নৈশভোজের আয়োজন করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী।

এ ছাড়া রাত আটটায় সুষমা স্বরাজের বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে বৈঠকের কথা রয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালের মে মাসে বিজেপি ক্ষমতায় আসার এক মাস পর ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে তিনি ঢাকায় এসেছিলেন। কংগ্রেস-আওয়ামী লীগ সম্পর্কের বিশেষ মাত্রা আর ৫ জানুয়ারির একতরফা নির্বাচনের কারণে তাঁর সেই সফরটি নিয়ে যথেষ্ট কৌতূহল ছিল বাংলাদেশের রাজনৈতিক মহলে।

বিশেষ করে ২০০৯ সালের জানুয়ারি থেকে পরের পাঁচ বছর বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কের ‘বিশেষ মাত্রা’য় কোনো খাদ সৃষ্টি হবে কি না, তা নিয়ে সরকারি মহলে কিছুটা হলেও সংশয় ছিল। আর বিজেপি ক্ষমতায় আসায় উৎসাহিত হয়েছিল বিএনপি। তবে ঢাকা সফরের সময় সুষমা স্বরাজ বলে গেছেন, কংগ্রেস শাসনামলে দুই প্রতিবেশীর সম্পর্কে যে অগ্রগতি হয়েছে, সেটি ধরেই সম্পর্কটা এগিয়ে নেবে বিজেপি।

কাল সোমবার বারিধারায় ভারতীয় হাইকমিশনের নতুন চ্যান্সেরি ভবনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন সুষমা স্বরাজ। সেখানে ভারতের আর্থিক সহযোগিতায় ১৫টি প্রকল্পের উদ্বোধন করার কথা রয়েছে।

এম এম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে