আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > আন্তর্জাতিক > বাঘের ভয়ে ৮ দিন গাছে!

বাঘের ভয়ে ৮ দিন গাছে!

বাঘের ভয়ে ৮ দিন গাছে!

প্রতিচ্ছবি ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক

রূপকথার গল্পের চেয়ে এই ঘটনাটি কোনো অংশে কম নয়। একটানা ৮ দিন বাঘের ভয়ে গাছে উঠে কাটিয়ে দিলেন অমল মন্ডল নামের এক জেলে। পুরো গ্রামে জল্পনা-কল্পনা শুরু হয় বাঘের পেটে গিয়েছেন, খুন হয়েছেন, না জলদস্যুর কবলে পড়েছেন অমল।

কয়েকদিন আগে আরও চারজন জেলের সঙ্গে সুন্দরবনের জঙ্গলে মাছ ধরতে বেরিয়েছিলেন। ছয় দিন পর সঙ্গীরা ফিরে এলেও অমল আসছিলেন না। অমল এলে কোথায় গেলেন তার কোনো সদুত্তর মিলছিল না।

অমলের সঙ্গীদের ভাষ্য, সুন্দরবনের ৮ নম্বর চিমটার জঙ্গলে গিয়েছিলেন তারা। রাতে খাড়িতে নোঙর করেন। সকালে উঠে দেখেন অমল নেই। অনেক খোঁজাখুঁজির পর ফিরে আসেন তারা। অথচ অমল ফিরে আসেননি।

কিন্তু অমল ফিরে এসে বললেন অবাক করা কথা। বাঘের ভয়ে সে আট দিন গাছে কাটিয়েছে। পুলিশ বলছে, জঙ্গলের ভেতরে গাছের ওপর থেকে একজনকে চিৎকার করতে দেখে বনকর্মীরা পাড়ে নৌকা আনেন। এরপর তারাই অমলকে উদ্ধার করেন।

অমল তার লোমহর্ষক এ ঘটনার বর্ণনা দেন, ‘রাতে খাবার খেয়ে তারা সবাই ঘুমিয়েছিলাম। সকালে হঠাৎ ঘুম ভেঙে দেখি জঙ্গলের ভেতরে ঘুমিয়ে আছি। সারা শরীরে কাদা। বিপদের মধ্যে মাথা ঠাণ্ডা রেখেছিলাম। বুঝেছিলাম, যেকোনো সময়ে বাঘের পেটে যেতে পারি। তাই সামনে একটা লম্বা মতো পাকাপোক্ত গর্জন গাছ দেখে চড়ে বসি।

‘আট দিন ওই গাছের ফল খেয়েছিলাম। নদীর নোনা জল মুখে তোলা না গেলেও বাধ্য হয়ে তাই খেয়েছি। ঘুমের ঘোরে যেন গাছ থেকে পড়ে না যাই সেজন্য গামছা দিয়ে নিজেকে শক্ত করে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখতাম নিজেকে।’

এ এম/এ আর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে