আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > আইন-মানবাধিকার > বগুড়ার সাথী আত্মহত্যা: জেল হাজতে বাবা-ছেলে

বগুড়ার সাথী আত্মহত্যা: জেল হাজতে বাবা-ছেলে

বগুড়ার সাথী আত্মহত্যা: জেল হাজতে বাবা-ছেলে

প্রতিচ্ছবি বগুড়া প্রতিনিধি:

বগুড়ার দুপচাঁচিয়ার জিয়ানগরে ইভটিজিংয়ের শিকার হয়ে নবম শ্রেণির মেধাবী ছাত্রী রোজিফা আক্তার সাথী আত্মহত্যার ঘটনায় বখাটে যুবক হুজাইফা ইয়ামিন ও তার বাবা আমিনুর রহমান মীরকে বৃহস্পতিবার জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

বগুড়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক আব্দুল্লাহ আল মামুন এর আদালতে তারা হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে আদালত জামিন না মঞ্জুর করে বৃহস্পতিবার তাদেরকে জেল হাজতে পাঠানোর আদেশ দেন।

এ সময় দুপচাঁচিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পিতা পুত্র দুই আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য ৭দিন করে রিমান্ডের আবেদন করেন। আদালত আগামী ১৫ অক্টোবর ঐ আবেদনের  শুনানির দিন ধার্য করেছেন।

উল্লেখ্য, গত রবিবার জিয়ানগর স্কুলের নবম শ্রেণীর ছাত্রী রোজিফা আক্তার সার্থীকে কয়েক মাস ধরে ইভটিজিং করতো ইয়ামিন। এ ব্যাপারে সাথীর পরিবারের পক্ষ থেকে কয়েকবার হুজাইফার বাবাকে অভিযোগ করা হয়। এতে কোন ব্যবস্থা না নিলে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানকে অভিযোগ করে। এতে প্রতিকার মেলেনি। রবিবার  প্রাইভেট পড়ে বাড়ি ফেরার পথে আবারো ইভটিজিং করলে সাথী বাড়ি ফিরে ঘরের দরজা বন্ধ করে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে।

এ ব্যাপারে সাথীর বাবা রবিউল ইসলাম রব্বানী বাদি হয়ে দুপচাঁচিয়া থানায় মামলা দায়ের করে। পুলিশ রাতেই বখাটেকে ধরতে গেলে পুলিশের উপর চড়াও হয় বখাটেদের লোকজন। এ ঘটনায় আরেকটি মামলা দায়ের করে পুলিশ। পরে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে ঘটনাস্থল থেকে ২৬ জনকে গ্রেফতার করে। তবে পুলিশের খোয়া যাওয়া ওয়্যারলেস সেটটি এখনও উদ্ধার হয়নি।

আমজাদ হোসেন মিন্টু / আর এইচ / এম এম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে