আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > খেলাধুলা > টাইগার অধিনায়ক ও জুনিয়র মাশরাফির জন্মদিন আজ

টাইগার অধিনায়ক ও জুনিয়র মাশরাফির জন্মদিন আজ

মাশরাফি বিন মুর্তজা

প্রতিচ্ছবি স্পোর্টস ডেস্ক:

মাশরাফি বিন মুর্তজা। বাংলাদেশের এ যাবৎকালের সেরা অধিনায়ক। মাশরাফি শুধু খেলোয়ার-ই নন। একটি উদ্দীপনা, বাংলাদেশ ক্রিকেটের জাগরনের সারথি। মাঠে-মাঠের বাইরে কোটি তরুণের রোল মডেল। মাশরাফি মানেই ক্রিকেট, মাশরাফি মানেই সাফল্য। সময়ে-অসময়ে দলকে সামনে থেকে সঠিক নেতৃত্ব দিয়ে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন মাশরাফি। নিজের শারিরীক বাধাকে দূরে সরিয়ে দিয়ে মাঠে সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা ব্যয় করেন।

সহ খেলোয়ারদের কাছ থেকে সর্বোচ্চ পারফরমেন্স বের করে আনেন। সাফল্যে উৎসাহ যোগান, বিপর‌্যয়ে পাশে দাঁড়ান। পুরো ক্রিকেট টিমকে এক সুতোয় বেধে রেখেছেন ম্যাশ। ব্যাক্তিত্ব-পারফরমেন্স সবকিছু দিয়েই তিনি নি:সন্দেহে দলের নিউক্লিয়াস।  সেই কিংবদন্তি ক্রিকেটারের জন্মদিন আজ (৫ অক্টোবর)। একই সঙ্গে তার ছেলে সাহেলেরও আজ জন্মদিন।

মাশরাফি বিন মুর্তজা

তার হাত ধরেই তো বাংলাদেশের ক্রিকেট এখন এক অনন্য উচ্চতায়। মাঠ ও মাঠের বাইরের জীবনে যার ব্যক্তিত্ব অন্য সবার কাছে অনুকরণীয় আদর্শ। ক্রিকেটে অনেক চড়াই-উতরাই পেরিয়েছেন মাশরাফি। সাফল্যের পথ কখনো মসৃণ, কখনো বন্ধুর। বেশ কয়েকবার ইনজুরির কারণে তাকে ছিটকে যেতে হয়েছিল। কিন্তু অনমনীয় অদম্য শক্তিতে ফিরে এসেছেন প্রতিবারই। তার নেতৃত্বগুণে বর্তমানে ওয়ানডে ও টি-২০ ক্রিকেটে দক্ষিণ এশিয়ার পরাশক্তি তো বটেই, বিশ্ব ক্রিকেটে বাংলাদেশের নাম উচ্চারিত হয় শক্তিশালী দল হিসেবেই।

১৯৮৩ সালের ৫ অক্টোবর নড়াইল শহরের মহিষখোলায় এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন নড়াইল এক্সপ্রেস খ্যাত মাশরাফি বিন মর্তুজা। আজ ৩৪ বছর বয়স পূর্ণ হয়েছে তার। তার পিতার নাম গোলাম মুর্তজা স্বপন এবং মাতার নাম হামিদা বেগম বলাকা। দুই ভাইয়ের মধ্যে মাশরাফি বড়। ছোট ভাই সিজার মাহমুদও ক্রিকেট নিয়েই সময় কাটান। মাশরাফি বিয়ে করেছেন তার বাসা থেকে এক কিলোমিটার দূরে আলাদাতপুরে। তার স্ত্রীর নাম সুমনা হক সুমি। ২০১৪ সালের এই দিনেই ঢাকায় জন্মগ্রহণ করে মাশরাফির ছেলে সাহেল মর্তুজা।

অসামান্য ব্যক্তিত্বসম্পন্ন এ ক্রিকেটারের ছেলেবেলা কেটেছে চিত্রা নদীতে সাঁতার কেটে। স্কুল ফাঁকি দিয়ে ক্রিকেট খেলতে যাওয়া ছেলেটি আজ বাংলাদেশ জাতীয় দলের অধিনায়ক। পাড়ার মাঠে বল হাতে গতি ছোটানো মাশরাফি প্রথমে সুযোগ পান অনূর্ধ্ব-১৯ দলে। সেখান থেকেই তিনি চোখে পড়েন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলিং কোচ অ্যান্ডি রবার্টসের। তার হাতে পড়েই ক্যারিয়ার বদলে যায় মাশরাফির। তিনিই একমাত্র ক্রিকেটার যিনি প্রথম শ্রেণির কোনো ম্যাচ না খেলেই টেস্টে অভিষিক্ত হন।

মাশরাফি বিন মুর্তজা

এর মধ্যে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সঙ্গে প্রায় ১৬ বছর ধরে যুক্ত আছেন তিনি। ক্যারিয়ারের শুরুতে পেসার হিসাবে বিশ্বব্যাপী সুনাম কুড়ালেও বর্তমানে অধিনায়ক হিসাবে তার খ্যাতিটা বেশি। ওয়ানডে ক্রিকেটে এখন পর্যন্ত তিনি বাংলাদেশ দলকে ৪৭টি ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়েছেন। এর মধ্যে ২৭টি ম্যাচে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ।

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে মাশরাফি বিন মুর্তুজার নেতৃত্বে ২৮টি ম্যাচ খেলে ১০টিতে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। টেস্ট ক্রিকেটে তিনি একটি ম্যাচে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। সেই ম্যাচটিতে বাংলাদেশ জয় পেয়েছিল।

মাশরাফি বিন মর্তুজা এখন শুধু ওয়ানডে ক্রিকেট চালিয়ে যাচ্ছেন। তিনি তো দীর্ঘদিন ধরে টেস্ট ক্রিকেট খেলেন না। আর সম্প্রতি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছেন। এখন পর্যন্ত ১৭৯টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলে মাশরাফি বিন ‍মর্তুজা ব্যাট হাতে করেছেন ১৫৮৭ রান। আর বল হাতে নিয়েছেন ২৩২টি উইকেট।

তিনি তার ক্যারিয়ারে ৩৬টি টেস্ট ম্যাচ খেলে ৭৯৭ রান করেছেন। বল হাতে নিয়েছেন ৭৮টি উইকেট। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে তিনি ৫৪টি ম্যাচ খেলে ৩৭৭ রান করেছেন ও বল হাতে ৪২টি উইকেট নিয়েছেন।

এসএম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে