আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > রাজনীতি > রোহিঙ্গা নয় মিয়ানমার ইস্যুতে বন্ধু দেশগুলোর পাশে থাকা উচিৎ: মির্জা আব্বাস

রোহিঙ্গা নয় মিয়ানমার ইস্যুতে বন্ধু দেশগুলোর পাশে থাকা উচিৎ: মির্জা আব্বাস

bnp-abbas-bg20150327115424

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:

বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গাদের নিয়ে পুরো বিশ্ব একসুরে কথা বলছে। আসছে অর্থ, আসছে সাহায্য। তবে এতে উপেক্ষিত থেকে যাচ্ছে মিয়ানমারের বর্বরতা ইস্যু এবং এ নিয়ে বাংলাদেশ সরকারের করনীয় নির্দেশনা। আর এখানেই বন্ধু দেশগুলোকে পাশে থাকার এবং সরকারকে মমতা ব্যানার্জির মতো কঠোর হবার পরামর্শ দিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস।

তিনি আরও বলেন, ‘শুরু থেকেই সরকার কঠিন অবস্থান নিলে রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে ফেরত পাঠাতে সাহস পেত না মিয়ানমার। রোহিঙ্গা ইস্যুতে নয়, মিয়ানমার ইস্যুতে বাংলাদেশের পাশে থাকা উচিত প্রতিবেশী বন্ধু দেশগুলোর।’

কোন দেশের সমর্থন নয়, বাংলাদেশের ১৬ কোটি মানুষের সমর্থন নিয়ে ভবিষ্যতে রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে স্ব-সম্মানে ফেরত পাঠানো হবে বলেও প্রতিশ্রুতি দেন মির্জা আব্বাস। তিনি বলেন,  ‘আজ আমাদের অত্যন্ত দুর্ভাগ্য কারণ সরকার সেই অবস্থান নিতে পারছে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গের মমতা ব্যানার্জি যে ভাষায় কথা বলেন, আমাদের সরকার কেন সেই ভাষায় কথা বলতে পারছে না। কিসের ভয়? বাংলাদেশের ষোল কোটি মানুষ রোহিাঙ্গাদের পক্ষে দাঁড়িয়েছে সেখানে কিসের ভয়?’

রোহিঙ্গা ইস্যুতে চীন ও রাশিয়ার দ্বিচারী ভূমিকায় মর্মাহত হলেও ভারতের দ্বিচারী ভূমিকায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের কেন মর্মাহত হননি? বলে প্রশ্ন করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস। তিনি ওবায়দুল কাদেরকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘ভারতকে ট্রানজিট, নৌ-রুটসহ অনেক কিছু দিলেন। ভারত আরও কী চাইবে এখন কি সেই অপেক্ষা আছেন?’

রবিবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনের দলীয় কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিলে তিনি এসব কথা বলেন। দলের সাবেক স্থায়ী কমিটির সদস্য আ স ম হান্নান শাহ’র প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বিএনপি।

মির্জা আব্বাস বলেন, ‘মিয়ানমারে যখন কসাইয়ের মতো মানুষ কাটা হয়, তখন ভারত বললো আমরা মিয়ানমারের পাশে আছি। এখন ভারত বলেছে রোহিঙ্গাদের সমস্যায় আমরা বাংলাদেশের পাশে  আছি।  ভারতের এমন অবস্থান খুবই মারাত্মক। এটার জন্য বাংলাদেশ সরকারের উচিৎ ছিল প্রতিবাদ করা। কিন্তু তারা সেটা করেনি। রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে সরকার যথাযথ পদক্ষেপ নিতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে।’

দেশের সাধারণ মানুষ ত্রাণ না দিলে বাংলাদেশে আসা একজন রোহিঙ্গাও বেচেঁ থাকতেন না বলে উল্লেখ করে  তিনি বলেন, ‘সেখানে গিয়ে দেখলাম, রোহিঙ্গারা কি মানবেতর জীবন-যাপন করছেন। কোনও শৃঙ্খলা নেই। দেশের সাধারণ মানুষ ত্রাণ না দিলে কেউ বাচঁতো না।’

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, দলটির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রহুল কবির রিজভী, সাংগঠনিক সম্পাদক ও গাজীপুর জেলা বিএনপির সভাপতি ফজলুল হক মিলন , ঢাকা মহানগর বিএনপির সেক্রেটারি কাজী আবুল বাসার প্রমুখ।

এম এম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে