আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > অর্থ-বাণিজ্য > রোহিঙ্গাদের স্বাস্থ্যসেবায় বাংলাদেশকে ২৫০ মিলিয়ন ডলার সহায়তার আশ্বাস

রোহিঙ্গাদের স্বাস্থ্যসেবায় বাংলাদেশকে ২৫০ মিলিয়ন ডলার সহায়তার আশ্বাস

রোহিঙ্গাদের স্বাস্থ্যসেবায় বাংলাদেশকে ২৫০ মিলিয়ন ডলার সহায়তার আশ্বাস

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:

মিয়ানমারের রাখাইনে সহিংসতা থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের স্বাস্থ্যসেবা দিতে বিশ্বব্যাংকের কাছে ২৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার চেয়েছে বাংলাদেশের সরকার।

রোহিঙ্গাদের স্বাস্থ্যসেবা ও দুর্যোগকালীন চিকিৎসা সহায়তা বিষয়ে বিশ্বব্যাংক ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিনিধি দলের সঙ্গে সোমবার বৈঠকের পর স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক এ তথ্য জানান।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, তারা এর চেয়ে (২৫০ ডলার) বড় একটা অংশ দেবেন বলে জানিয়েছেন। তবে কত পাচ্ছি তা এখনই জানানো সম্ভব নয়।

স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ অতীতে যেভাবে বিভিন্ন দুর্যোগ মোকাবিলায় সফল হয়েছে, তেমনি এবারও রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সহায়তা কাজেও সফল হবে। তিনি বলেন, মহামারি ও দুর্যোগ মোকাবিলায় বিশ্বের যে ৭৫টি দেশকে বিশ্বব্যাংক সহযোগিতা করার জন্য তালিকাভুক্ত করেছে বাংলাদেশ তাদের অন্যতম। বিশ্ব ব্যাংকের গ্রেডিং অনুযায়ী মানদণ্ড পাঁচ পয়েন্ট অর্জন করার ক্ষেত্রে বাংলাদেশের গ্রেডিং বর্তমানে ২.৫। বর্তমান অবস্থান অনুযায়ী বাংলাদেশ বিশ্বব্যাংকের অনুদান পাওয়ার যোগ্য। তবে এই অর্থ সফলভাবে ব্যয় করতে হলে বাংলাদেশের প্রস্তুতিকে আরও এগিয়ে নিয়ে ৪ পয়েন্ট গ্রেডিং-এ উন্নীত করতে হবে। দক্ষ জনবল সৃষ্টি, উন্নতমানের ল্যাবরেটরি স্থাপন, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন, পর্যবেক্ষণ ব্যবস্থাপনা শক্তিশালীকরণ, প্রশিক্ষণের মান বৃদ্ধি ও যন্ত্রপাতির আধুনিকায়নের মাধ্যমে বাংলাদেশকে সব ধরনের মহামারি ও দুর্যোগ মোকাবিলায় প্রস্তুত করে তুলতে সরকার উদ্যোগ নিচ্ছে। এসময় তিনি রোহিঙ্গা শরণার্থীদের চিকিৎসা সহায়তা কার্যক্রমে সরকারের গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরেন।

50281

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে গত ২৫ আগস্ট সহিংসতা শুরুর পর বাংলাদেশ সীমান্তে রোহিঙ্গাদের ঢল নামে। ২৫ আগস্ট রাতে এআরএসএ-র বিদ্রোহীরা পশ্চিম রাখাইনে প্রায় ৩০টি পুলিশ ফাঁড়ি ও সেনাবাহিনীর শিবিরের ওপর একযোগে হামলা চালিয়ে সরকারি বাহিনীর ১২ জনকে হত্যা করেছে বলে দাবি করে মিয়ানমার।

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সাহায্যার্থে বাংলাদেশের আবেদনকে সক্রিয়ভাবে বিবেচনা করা হবে বলে আশ্বস্ত করে বিশ্ব ব্যাংকের হিউম্যান ডেভেলপমেন্ট নেটওয়ার্কের মুকেশ চাওলা বলেন, রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে খাদ্য, বাসস্থান ও চিকিৎসা সেবাকালে বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত সফলভাবে কাজ করছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বাংলাদেশ প্রতিনিধি ড. এম. পারানিথরন রোহিঙ্গাদের স্বাস্থ্যসেবা প্রদানে সরকারের সাফল্যের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মানবিক দৃষ্টিকোণ আজ সারা বিশ্বে প্রশংসিত। পাশাপাশি তাঁর নির্দেশনায় এবং স্বাস্থ্যমন্ত্রীর নেতৃত্বে রোহিঙ্গা শরণার্থী কেন্দ্রে যে চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে তা বিরল। অনেক দেশই মাত্র দুই সপ্তাহের মধ্যে আসা এত বিপুলসংখ্যক শরণার্থীদের স্বাস্থ্যসেবা প্রদানে এত দ্রুত পদক্ষেপ সফলভাবে নিতে পারে নাই। প্রাণভয়ে পালিয়ে আসা পাঁচ লক্ষ রোহিঙ্গা শরণার্থীদের স্বাস্থ্য সেবা প্রদান কার্যক্রমে বাংলাদেশ সরকারের সাথে অংশীদার হতে পেরে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা গর্বিত।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব হারুন অর রশিদ, বিশ্ব ব্যাংকের বাংলাদেশ কার্যালয়ের সিনিয়র হেলথ স্পেশালিস্ট বুশরা বিনতে আলমসহ মন্ত্রণালয়, বিশ্ব ব্যাংক ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এ আর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে