আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > জাতীয় > পূজার টাকায় রোহিঙ্গাদের ত্রাণ

পূজার টাকায় রোহিঙ্গাদের ত্রাণ

পূজার টাকায় রোহিঙ্গাদের ত্রাণ

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে ‘শুদ্ধি অভিযান’ নামক নারকীয় হত্যাকাণ্ড ও নৃশংস নির্যাতনের শিকার হয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর পাশে দাঁড়াতে এবার শারদীয় দুর্গোৎসবের ব্যয় কমানোর ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ।

শুক্রবার রাজধানীর ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে দুর্গোৎসবের প্রস্তুতি ও সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে  এ সিদ্ধান্তের কথা জানান পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক তাপস কুমার পাল।

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের নিয়ে এক ভয়াবহ অমানবিক সমস্যার সম্মুখীন হয়েছি। আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, দুর্গাপূজায় উৎসবের খরচ কমিয়ে শরণার্থীদের সহায়তায় এগিয়ে যাব।’

পরিষদের এ সিদ্ধান্তের কথা সারা দেশের পূজা কমিটিগুলোকে জানানো হয়েছে বলে জানান তাপস কুমার।

পূজার টাকায় রোহিঙ্গাদের ত্রাণ

এর আগে শারদীয় দুর্গোৎসবের নিরাপত্তা নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের নেতারা দেশের সব পূজামণ্ডপকে অধিকতর সতর্ক ও সংযত থাকার নির্দেশনা দিয়েছেন।

তাপস কুমার পাল জানান, তারা নিরাপত্তা ইস্যুতে করণীয় সম্পর্কে ইতোমধ্যে জেলা কমিটিগুলোর নেতাদের নির্দেশনা দিয়েছেন।

পরে পরিষদের পক্ষ থেকে শারদীয় দুর্গোৎসবে তিনদিনের সরকারি ছুটি ঘোষণা, দুর্গোৎসবে বঙ্গভবন, গণভবন ও নগর ভবনসহ জেলা পর্যায়ে সরকারি ভবনগুলোতে আলোকসজ্জা করা, দেশের সব কারাগারে উন্নত খাবার পরিবেশন, ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট বাতিল করে হিন্দু ফাউন্ডেশন গঠনসহ বেশ কয়েকটি দাবি তুলে ধরেন তাপস কুমার পাল।

পূজার টাকায় রোহিঙ্গাদের ত্রাণ

তিথি অনুযায়ী, ২৬ সেপ্টেম্বর মহাষষ্ঠীতে দুর্গার বোধনের মাধ্যমে শুরু হবে দুর্গোৎসব। ৩০ সেপ্টেম্বর বিজয়া দশমীতে প্রতিমা বির্সজনের মধ্যে দিয়ে উৎসব শেষ হবে। এবার দেবী আসছেন নৌকায়, যাবেন ঘোটকে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে মহানগর সার্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটির সাধারণ সম্পাদক শ্যামল কুমার রায়সহ অন্যান্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

এবার সারা দেশে পূজার সংখ্যা ৩০ হাজার ৭৭টি, ঢাকায় হবে ২৩১টি মণ্ডপ।

এ আর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে