আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > অর্থ-বাণিজ্য > যমুনা সার কারখানা বন্ধ

যমুনা সার কারখানা বন্ধ

যমুনা সার কারখানা বন্ধ

প্রতিচ্ছবি স্পোর্টস ডেস্ক:

পৌর লাইসেন্স পরিদর্শক মারুফ হোসেনকে কুপিয়ে আহত করার প্রতিবাদে যমুনা সার কারখানা এলাকায় তারাকান্দি-ভুয়াপুর সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন এলাকাবাসী। এ কারণে সরিষাবাড়ী সড়কে যান চলাচল ও যমুনা সার কারখানা থেকে সার পরিবহন বন্ধ রয়েছে।

বুধবার সকাল সাড়ে আটটা থেকে তারাকান্দি-ভুয়াপুর সড়ক অবরোধ করে রেখেছেন এলাকাবাসী। এতে দুর্ভোগে পড়েছেন সাধারণ যাত্রী ও সার ব্যবসায়ীরা।

স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, পৌর লাইসেন্স পরিদর্শক মারুফ হোসেনের কাছে বেশ কয়েক দিন ধরে চাঁদা চেয়ে আসছিলেন আওনা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য রাজা মিয়া। কিন্তু মারুফ চাঁদা না দেওয়ায় ক্ষিপ্ত ছিলেন রাজা। সকালে মারুফ মোটরসাইকেলে আওনা এলাকায় রাজার বাড়ির কাছ দিয়ে যাচ্ছিলেন।

এ সময় রাজা তাঁর মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে চলে যান। পরে স্থানীয় লোকজন মারুফকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে যমুনা সার কারখানা হাসপাতালে নিয়ে যায়। অবস্থার অবনতি হলে পরে তাঁকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এই ঘটনার প্রতিবাদে ও রাজা মিয়াকে গ্রেপ্তারের দাবিতে সকাল সাড়ে আটটা থেকে তারাকান্দি-ভুয়াপুর সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন এলাকাবাসী। বিক্ষোভ এখনো চলছে। এ কারণে ওই সড়কে যান চলাচল ও যমুনা সার কারখানা থেকে ১৯ জেলায় সার পরিবহন বন্ধ রয়েছে।

যমুনা সার কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক খান জাভেদ আনোয়ার বলেন, সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভের কারণে সকাল সাড়ে আটটা থেকে ট্রাকে কারখানার সার পরিবহন বন্ধ রয়েছে।

আওনা ইউপির চেয়ারম্যান বিল্লাল হোসেন বলেন, রাজা মিয়া একজন দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী। দীর্ঘ দিন ধরে তিনি নানা অপকর্ম করে আসছিলেন। আজ মারুফকে কুপিয়ে আহত করেছেন। এ কারণেই এলাকাবাসী সড়ক অবরোধ বিক্ষোভ করছেন।

তারাকান্দি পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের কর্মকর্তা জোয়ায়ের হোসেন খান বলেন, মারুফকে কুপিয়ে আহত করার বিষয়ে এখনো লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি।

এ আর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে