আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > রাজনীতি > সেনা প্রত্যাহারসহ ঐক্যবদ্ধ নাগরিক আন্দোলনের ১০ দফা দাবি ইসিতে

সেনা প্রত্যাহারসহ ঐক্যবদ্ধ নাগরিক আন্দোলনের ১০ দফা দাবি ইসিতে

সেনা প্রত্যাহারসহ নাগরিক ঐক্যের ১০ দফা দাবি ইসিতে

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:

আগামী জাতীয় নির্বাচনে সেনা চায় না ঐক্যবদ্ধ নাগরিক আন্দোলন। দলটি মনে করে বিশেষ প্রয়োজনে পরিস্থিতি অনুযায়ী বিজিবিসহ অন্য বাহিনী নিয়োগ করেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।

দলটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাহানারা বেগম আলোর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল রবিবার সকালে ইসির সঙ্গে সংলাপে বসে। এসময় নির্বাচন কমিশনের কাছে ১০ দফা দাবি পেশ করে দলটি।

রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনের সম্মেলনকক্ষে বেলা ১১টায় এ সংলাপ শুরু হয়। সংলাপে সভাপতিত্ব করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার সিইসি কে এম নূরুল হুদা।

ঐক্যবদ্ধ নাগরিক আন্দোলনের অন্যান্য প্রধান দাবিগুলো হলো- দলীয় প্রচারে ধর্মকে ব্যবহার না করা, ধর্মের নামে রাজনীতি করে এমন দলকে নির্বাচনে অংশগ্রহণের সুযোগ না দেয়া, সব দলের সমান সুযোগ দেয়া, ভোটার সংখ্যা অনুপাত এবং প্রশাসনিক এরিয়া বিবেচনায় রেখে সংসদীয় এলাকা নির্ধারণ, নিবন্ধিত দল মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষে হলে, দেশদ্রোহী কাজ না করলে সে দল নির্বাচনে কখনো অংশ না নিলেও নিবন্ধ বাতিল না করা, একই দিনে জাতীয় নির্বাচন করা, অনলাইনে মনোনয়ন জমার সুযোগ, সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা বজায় রাখার জন্য বর্তমান নির্বাচন কমিশনের অধীনেই নির্দিষ্ট সময়ে একাদশ জাতীয় নির্বাচন সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষভাবে সম্পন্ন করা।

বিকাল ৩টায় বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির সঙ্গে মতবিনিময় করবে নির্বাচন কমিশন ইসি।

আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ঘোষিত রোডম্যাপ অনুযায়ী এ সংলাপ করছে ইসি। সুশীল সমাজ, গণমাধ্যমের পর ধারাবাহিক রাজনৈতিক দলগুলো সঙ্গে সংলাপ করছে নির্বাচন কমিশন। গত ৩১ জুলাই সুশীল সমাজ, ১৬ ও ১৭ অগাস্ট গণমাধ্যম প্রতিনিধির সঙ্গে সংলাপের পর ২৪ অগাস্ট থেকে রাজনৈতিক দলের সঙ্গে মত বিনিময় শুরু করে ইসি। নিবন্ধিত ৪০টি দলের মধ্যে এ পর্যন্ত ১০টি দলের সঙ্গে সংলাপ করেছে ইসি।

এ আর/ডিডিআর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে