আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > অর্থ-বাণিজ্য > জেলেদের জালে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ, দাম শুনে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন ক্রেতারা

জেলেদের জালে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ, দাম শুনে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন ক্রেতারা

জেলেদের জালে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ, দাম শুনে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন ক্রেতারা

প্রতিচ্ছবি বরিশাল প্রতিনিধি :

মৌসুমের মধ্যভাগে বরিশালের নদ-নদীতে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ ধরা পড়ছে জেলেদের জালে। এ ছাড়া গভীর সমুদ্রেও ধরা পড়ছে প্রচুর ইলিশ। নদী-সাগরে প্রতিদিন ধরা পড়া বিপুল পরিমাণ ইলিশ আসায় কর্মব্যস্ত সময় কাটছে আড়তদার ও শ্রমিকদের।

বেশি বেশি ইলিশ ধরা পড়ার খবরে আগ্রহী ক্রেতারা বাজারে গেলেও দাম শুনলেই মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন। যদিও আগামী কয়েক দিনে ইলিশের দাম কিছুটা কমবে বলে আশাবাদী সংশ্লিষ্টরা।

নগরের পোর্ট রোডের ‘দিনা মত্স্য আড়ত’-এর স্বত্বাধিকারী মো. ফরিদউদ্দিন জানান, ১৫ দিন আগেও বরিশালের মোকামে প্রতিদিন ইলিশ আসত ৫০০ থেকে ৭০০ মণ। শুক্রবার এসেছে অন্তত ২ হাজার মণ ইলিশ। অভ্যন্তরীণ নদী ও সাগরে ধরা পড়া ইলিশ বিক্রি হয় পৃথক দামে। নদীর ইলিশ গতকাল ১২০০ গ্রাম থেকে তদূর্ধ্ব সাইজের প্রতি মণ বিক্রি হয়েছে ৫০-৫৫ হাজার, ১ কেজি সাইজের ৩৮-৪০ হাজার, এলসি সাইজের (৬০০-৯০০ গ্রাম) ২৮ হাজার ৫০০ থেকে ২৯ হাজার, ভ্যালকা (৪০০-৫৫০ গ্রাম) ১৮ হাজার এবং জাটকা প্রতি মণ ৮-৯ হাজার টাকায়।

আরেক আড়তদার আবদুল হালিম সিকদার বলেন, ‘নদী ও সাগরের ইলিশের স্বাদে তফাত আছে। নদীর ইলিশ স্বাদে-গুণে অনন্য। আর সাগরের ইলিশ একটু লবণাক্ত ও অত্যধিক তৈলযুক্ত। এ কারণে নদীর ইলিশের চাহিদা এবং দামও বেশি।’

জেলেদের জালে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ, দাম শুনে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন ক্রেতারা

বরিশাল মোকামে ফিশিং বোটের (সাগরে আহরিত) ইলিশ প্রতি মণ বিক্রি হয়েছে ১৭-১৮ হাজার টাকায়। আড়তদাররা জানান, স্থানীয় পাইকাররা পোর্ট রোডের মোকাম থেকে নিলামে ইলিশের চালান কিনে বাছাই করে ঢাকাসহ সারা দেশে সরবরাহ করেন। তুলনামূলক ছোট ইলিশগুলো বরিশালের অভ্যন্তরীণ বিভিন্ন বাজারের খুচরা বিক্রেতাদের কাছে বিক্রি করেন তারা।

বরিশাল জেলা মত্স্য দফতর সূত্র জানায়, আগস্ট-অক্টোবর এ তিন মাস ইলিশের প্রজনন মৌসুম। এ সময় ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ ডিম ছাড়তে সাগর থেকে অভ্যন্তরীণ মিঠা পানির নদ-নদীতে আসে। অভ্যন্তরীণ নদ-নদী ও সাগরে সারা বছর কমবেশি বিভিন্ন সাইজের ইলিশ ধরা পড়লেও এ তিন মাসই ইলিশ শিকারের প্রধান মৌসুম বলা হয়। এ সময় নদী ও সাগরে সারা বছরের তুলনায় অনেক বেশি ইলিশ ধরা পড়ে জেলেদের জালে।

গত বছর আগস্টের মাঝামাঝি অর্থাৎ মৌসুমের শুরুর দিকে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়লেও এবার জেলেদের জালে ইলিশ ধরা পড়ে ৬ সেপ্টেম্বর ভরা পূর্ণিমার দিন থেকে।

বরিশাল জেলা মত্স্য দফতরের কর্মকর্তা (ইলিশ) বিমল চন্দ্র দাস জানান, এবার একটু দেরিতে নদী-সাগরে জেলেদের জালে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়তে শুরু করেছে। সেপ্টেম্বরব্যাপী নদী-সাগরে এভাবে ইলিশ ধরা পড়বে বলে তারা আশা করছেন। আগামী কয়েক দিনে আরও প্রচুর ইলিশ ধরা পড়বে এবং দামও তুলনামূলক কমবে বলে আশাবাদী তারা।

ডিমওয়ালা মা ইলিশের প্রজনন নিরাপদ করতে এবার ১ অক্টোবর থেকে পরবর্তী ২২ দিন সরকার সব ধরনের ইলিশ শিকারে নিষেধাজ্ঞা জারি করতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন মত্স্য কর্মকর্তা বিমল চন্দ্র দাস।

এ আর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে