আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > আন্তর্জাতিক > ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জে ‘ইরমা’র তাণ্ডবে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৪

ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জে ‘ইরমা’র তাণ্ডবে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৪

ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জে 'ইরমা’র তাণ্ডবে নিহত বেড়ে ১৪

প্রতিচ্ছবি ইন্টারন্যাশনাল ডেস্কঃ

প্রলয়ঙ্করী হারিকেন ‘ইরমা’র আঘাতে ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জে  নিহত বেড়ে ১৪ জনে দাঁড়িয়েছে। আহত হয়েছেন অনেকে। এদিকে, নিম্নাঞ্চলীয় দ্বীপগুলো ভয়াবহ ঝড়ের কবলে পড়তে পারে বলে হুঁশিয়ার করা হয়েছে। সেই সঙ্গে ইরমার প্রভাবে এসব অঞ্চলে ছয় মিটার বা ২০ ফুট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাস হতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল হারিকেন সেন্টার (এনএইচসি) জানায়, আটলান্টিক মহাসাগরে সৃষ্ট এক শতকের মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী হারিকেন ইরমা। সর্বোচ্চ ক্যাটাগরি পাঁচ মাত্রার এ হারিকেনের প্রভাবে ঘণ্টায় ১৭৫ মাইল বা ২৮০ কিলোমিটার বেগে বাতাস বইছে।

ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জে 'ইরমা’র তাণ্ডবে নিহত বেড়ে ১৪

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, বুধবার স্থানীয় সময় সকালে ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জে ঘণ্টায় ২৮০ কিলোমিটার বেগে আছড়ে পড়ে এই ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়। বারবুডা এবং এন্টিগুয়া দ্বীপে প্রথম আঘাত হানে ইরমা। তারপর সেন্টমার্টিন, সেন্ট বার্টস, পুয়ের্তো রিকো, হাইতি, ডমিনিকান রিপাবলিক এবং কিউবায়। এতে ক্যারিবীয় অঞ্চলের ছোট কয়েকটি দ্বীপকে ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে।

ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জে 'ইরমা’র তাণ্ডবে নিহত বেড়ে ১৪

এন্টিগুয়া ও বারবুডার প্রধানমন্ত্রী জানান, ঝড়ে সেখানে অন্তত একজন নিহত হয়েছে এবং দ্বীপের প্রায় ৯০ শতাংশ ভবনই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন বলেন, সেন্ট মার্টিন ও সেন্ট বার্টসে ক্ষতির মাত্রা ব্যাপক। এই দুই দ্বীপে আঘাত হানার আগে ঘূর্ণিঝড়ে বাতাসের গতি ছিল ঘন্টায় ৩০০ কিলোমিটার।

ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জে 'ইরমা’র তাণ্ডবে নিহত বেড়ে ১৪

ফরাসি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, ঘূর্ণিঝড় ‘ইরমা’ ক্যারিবিয়ান অঞ্চলে ফরাসি দ্বীপ অঞ্চলগুলিতে যথেষ্ট ক্ষতি করেছে। এই ঝড়ের কারণে আকস্মিক বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। এতে হতাহতের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে জানানো হয়, হারিকেনটি এখন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জ পেরিয়ে ইরমা শনিবারের মধ্যেই যুক্তরাষ্টের মূল ভূখণ্ডে আঘাত হানবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সূত্র: বিবিসি

এসএম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে