আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > রোহিঙ্গা সংকট > অবশেষে মুখ খুললেন সু চি; রোহিঙ্গাদের হত্যা নয়, ‘রক্ষা’ করা হচ্ছে!

অবশেষে মুখ খুললেন সু চি; রোহিঙ্গাদের হত্যা নয়, ‘রক্ষা’ করা হচ্ছে!

হত্যা নয়, রাখাইনে সবাইকে 'রক্ষা' করা হচ্ছে: সুচি

প্রতিচ্ছবি ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক:

বিশ্বজুড়ে নিন্দার ঝড়। রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন বন্ধে অং সান সু চির ওপর তীব্র চাপ সৃষ্টি করেছে বিশ্ব। পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের নিয়ে বাংলাদেশে যখন এক ভয়াবহ মানবিক সঙ্কটের সৃষ্টি হয়েছে তখনও তার আঁচ লাগে নি মিয়ানমার সরকারের নেতৃত্বে থাকা অং সান সু চির গায়ে। তিনি আগের মতোই উল্টো সুরে সুর মেলালেন। তিনি নিন্দা জানালেন ঠিকই, তবে সেই নিন্দা তার সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে নয়। তিনি নিন্দা জানালেন ‘টেরোরিস্ট’দের বিরুদ্ধে। রোহিঙ্গা মুসলিমদের তিনি এ নামেই অভিহিত করেছেন।

এদিকে জাতিসংঘের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মিয়ামনারের রাখাইনে সহিংসতার মুখে পড়ে গত ১০ দিনে এক লাখ ২৫ হাজার রোহিঙ্গা দেশ ছেড়েছেন। প্রাণ হারিয়েছেন শত শত রোহিঙ্গা মুসলিম।দাঙ্গা কবলিত রাখাইন থেকে হিন্দুরাও পালিয়ে যাচ্ছেন। সেনাবাহিনী হেলিকপ্টার থেকে গুলি-বোমা ছুড়ছে।

তবে দেশটির রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা ও শান্তিতে নোবেল বিজয়ী অং সান সু চি দাবি করেছেন, ‘রাখাইনে সবাইকে রক্ষা করা হচ্ছে।’

ফেসবুকে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে অং সান সু চি বলেছেন, যতটা সম্ভব রাখাইনের সাধারণ মানুষকে রক্ষার চেষ্টা করছে সরকার। এক্ষেত্রে ভুল তথ্য, যার ফলে অন্য দেশের সঙ্গে সম্পর্ক বাধাগ্রস্ত হয়, তা ছড়িয়ে দেয়ার বিষয়ে তিনি সতর্ক করেন। এক্ষেত্রে সুচি তুরস্কের উপ প্রধানমন্ত্রীর পোস্ট করা হত্যাকান্ডের বেশকিছু ছবির কথা তুলে ধরেন।

সু চি বলেন, টুইটারে পোস্ট করা ওইসব ছবি পরে মুছে ফেলা হয়। কারণ, ওই ছবিগুলো মিয়ানমারের ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট নয়। সামাজিক মিডিয়ায় দেয়া বিবৃতিতে সু চি বলেন, একজন উপ প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে এমন ভুয়া তথ্য ছড়িয়ে দেয়ায় বিরাট রকমের সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে বিভিন্ন দেশের মধ্যে। এর ফলে সন্ত্রাসীদের উদ্দেশ্যকে প্রশ্রয় দেয়া হবে।

উল্লেখ্য, ১২ দিন আগে রাখাইনে সহিংসতা শুরু হয়। তারপর থেকে কমপক্ষে ৪০০ রোহিঙ্গাকে হত্যার কথা স্বীকার করেছে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। এর ফলে বাণের পানির মতো রোহিঙ্গা শরণার্থীরা ছুটে আসছে বাংলাদেশের দিকে। এত বিপুল সংখ্যক মানুষের আশ্রয়, তাদের খাদ্য, চিকিৎসা সহ মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করা এক কঠিন চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এসএম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে