আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > জাতীয় > ‘লাঠি’ নিয়ে সংলাপে সাংস্কৃতিক মুক্তি জোট

‘লাঠি’ নিয়ে সংলাপে সাংস্কৃতিক মুক্তি জোট

‘লাঠি’ নিয়ে সংলাপে সাংস্কৃতিক মুক্তি জোট

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:

রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে নির্বাচন কমিশনের প্রথম দিনের সংলাপে যোগ দিয়েছে বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তি জোট। দলীয় প্রতীক লাঠি নিয়ে সংলাপে প্রবেশ করেছেন জোটটির প্রতিনিধিরা। জোটের সংগঠন প্রধান আবু লায়েস মুন্নার নেতৃত্বে ১২ সদস্যের প্রতিনিধি দল সংলাপে অংশ নিয়েছে।

এদিকে বন্যা ও পূর্বনির্ধারিত কর্মসূচি থাকায় বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট (বিএনএফ) আজ সংলাপে অংশ না নেয়ায় বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক জোটের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমেই রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপ শুরু করেছেন নির্বাচন কমিশন।

এ বিষয়ে ইসির জনসংযোগ পরিচালক এসএম আসাদুজ্জামান জানান, দলীয় কর্মসূচি থাকায় ২৪শে আগস্ট কমিশনের সংলাপে থাকতে পারবে না বলে বিএনএফ দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। দলটি সংলাপের জন্য পরবর্তীতে সময় চাইবে বলে জানিয়েছে।

‘লাঠি’ নিয়ে সংলাপে সাংস্কৃতিক মুক্তি জোট

এর আগে সংলাপে অংশগ্রহণ করতে না পারার কারণ জানিয়ে বিএনএফের প্রেসিডেন্ট এসএম আবুল কালাম আজাদ এমপি প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে (সিইসি) একটি চিঠি পাঠিয়েছেন। চিঠিতে বিএনএফ জানিয়েছে, দেশে চলমান বন্যার মতো ভয়াবহ দুর্যোগের সময়ে জনগণের পাশে থেকে কাজ করছে বিএনএফ। দলের জাতীয় ও কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য দ্বারা গঠিত একাধিক প্রতিনিধি দল দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় কাজ করছে। জামালপুর জেলার বন্যা দুর্গত এলাকা পরিদর্শন ও পরিদর্শন শেষে বন্যা দুর্গতদের মাঝে ত্রাণ বিতরণের পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচি রয়েছে দলটির। তাই দলটির জন্য সংলাপে ২৪ আগস্ট নির্ধারিত তারিখের ১ মাস পর কমিশনের সুবিধাজনক নতুন সময়সূচি পুনঃনির্ধারণ করার অনুরোধ জানিয়েছেন তারা।

ফলে নির্বাচন কমিশনকে বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক জোটের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমেই রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপ শুরু করতে হচ্ছে বলে জানান ইসির জনসংযোগ পরিচালক এসএম আসাদুজ্জামান।

প্রসঙ্গ, আজ ২৪শে আগস্ট থেকে সংলাপ শুরু হয়ে ঈদের আগে ৩০শে আগস্ট পর্যন্ত ছয়টি দলকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। ঈদের পরে আরো ছয়টি দলের সঙ্গে মতবিনিময়ের সূচি চূড়ান্ত হয়েছে। যেসব দলের জন্য সংলাপের সময়সূচী নির্ধারন করা হয়েছে সেগুলো হচ্ছে -২৪ আগস্ট সকাল ১১টায় বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট-বিএনএফ ও বিকেল ৩টায় বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তিজোট, ২৮ আগস্ট সকাল ১১টায় বাংলাদেশ মুসলিম লীগ-বিএমএল ও বিকেল ৩টা খেলাফত মজলিস, ৩০ আগস্ট সকাল ১১টায় বাংলাদেশ বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি ও বিকেল ৩টায় জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি- জাগপা, ১০ সেপ্টেম্বর সকাল ১১টায় বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট ও বিকেল ৩টায় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, ১২ সেপ্টেম্বর সকাল ১১টায় বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস ও বিকাল ৩টায় ইসলামী ঐক্যজোট এবং ১৪ সেপ্টেম্বর সকাল ১১টায় কল্যাণ পার্টি ও বিকেল ৩টায় ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ। ইসির নিবন্ধনের তালিকায় থাকা শেষ দল থেকে সংলাপ শুরু করে পর্যায়ক্রমে সব দলের সঙ্গে সংলাপ করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ২৮ জানুয়ারির পূর্ববর্তী ৯০ দিনের মধ্যে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন করার সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে। আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ১৬ জুলাই কর্মপরিকল্পনা ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এরপর সুশীল সমাজ, গণমাধ্যমের প্রতিনিধি, রাজনৈতিক দল, নির্বাচন পর্যবেক্ষক প্রতিনিধিসহ বিভিন্ন মহলের সঙ্গে মতবিনিময় করার সিদ্ধান্ত নেয় কমিশন। ৩১ জুলাই সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের মাধ্যমে এ সংলাপ শুরু হয়। এরপর ১৬ ও ১৭ আগস্ট গণমাধ্যমের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করে ইসি। এরই ধারাবাহিকতায় ২৪ আগস্ট থেকে রাজনৈতিক দলের সঙ্গে বৈঠক শুরু করার সিদ্ধান্ত নেয় কমিশন।

এসএম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে