আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > অপরাধ > আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদারের গাড়ি জব্দ!

আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদারের গাড়ি জব্দ!

২৩ মে ২০১৭,

sylhet-photo-aovi

অস্মিত অভি, সিলেট প্রতিনিধি:

সিলেট নগরের কোতোয়ালি থানাধীন জিন্দাবাজারের একটি বাসা থেকে দিলদার নামো এক ব্যাক্তির একটি গাড়ি জব্দ করেছে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর।

ধারনা করা হচ্ছে গাড়িটি আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদের। মঙ্গলবার (২৩ মে) বিকেলে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে মারসিডিজ ব্র্যান্ডের (ঢাকা মেট্রো-গ-৩১-৮৮৫৬) এ গাড়িটি উদ্ধার করা হয়। যার বাজার মূল্য প্রায় দেড় কোটি টাকা।

সিলেট শুল্ক গোয়েন্দা অধিদপ্তরের সহকারি কমিশনার প্রভাত কুমার সিংহ বলেন, ‘গাড়ি থেকে দিলদার নামের এক ব্যক্তির নাম পাওয়া যায়। তবে এ দিলদার আপন জুয়েলার্সের মালিক কিনা সে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’
গাড়িটির বর্নণা দিয়ে তিনি জানান, মারসিটিজ ব্র্যান্ডের (ঢাকা মেট্রো-গ-৩১-৮৮৫৬) গাড়িটি ২০১১ মডেলের। ২০১৫ সালের দিকে গাড়িটি রেজিস্ট্রেশন করা হয়। ধারণা করা হচ্ছে গাড়িটি শুল্ক ফাঁকি দিয়ে দেশে নিয়ে আসা হয়।
জানা যায়, সিলেটের গোলাপগঞ্জে আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদ সেলিমের বাড়ি। আর তার শ্বশুড় বাড়ি হচ্ছে সিলেট নগরের শেখঘাট এলাকায়। সাফাতের নানাকে ওই এলাকায় সবাই মতিন মিয়া নামেই চেনেন।

sylhet-photo-aovi1
জানা যায়, মারসিডিজ ব্র্যান্ডের (ঢাকা মেট্রো-গ-৩১-৮৮৫৬) গাড়িটি নিয়ে (৮ মে) সিলেটে এসেছিল বনানী ধর্ষণ মামলার আসামি সাফাত, সাকিফসহ কয়েকজন। ওই দিন দুপুরে সিলেটের দক্ষিণ সুরমার সিলামের ঠাকুরবাড়ি টিল্লাপাড়ার ‘রিজেন্ট পার্ক রিসোর্টে’তারা রুম ভাড়া নিতে গিয়েছিল। কিন্তু রুম ভাড়া দেওয়ার আগে হোটেলের কর্মচারীরা তাদের কাছে ভোটার আইডি কার্ড চাইতেই ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে সাফাত। এরপর সাফাত ও তার সহযোগীরা তড়িঘড়ি করে হোটেল ছেড়ে চলে যায়। এরপর সাফাতের মামা মাসুমের সহযোগীতায় তারা দুজনই সিলেট নগরের জালালাবাদ থানার লন্ডন প্রবাসী মামুনুর রশীদের বাড়ি ‘রশীদ ভিলা’আত্মগোপনে থাকে।
সাফাতের মামা ওই দুই আসামিকে সেখানে আত্মগোপনের জন্য নিয়ে যায় বলে জানিয়েছেন বাড়িটির কেয়ারটেকার নুরুন্নবী। এরপর (১১ মে) ঢাকা থেকে পুলিশের একটি দল প্রযুক্তি ব্যবহার করে মহানগর পুলিশের সহযোগীতায় ওই বাসা থেকে তাদেরকে গ্রেফতার করে। তাদেরকে (১০ মে) রাত ১১টায় ওই বাসায় নিয়ে যান সাফাতের মামা মাসুম। আত্মগোপনের সুবিধার্তে মারসিডিজ ব্র্যান্ডের ওই গাড়িটি তাদের আত্মীয় কারও কাছে রাখা হয়েছিল বলে শুল্ক গোয়েন্দাদের ধারণা।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে