আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > অর্থ-বাণিজ্য > পাঁচ লাখ টাকার গরুর সাথে ছাগল ফ্রি!

পাঁচ লাখ টাকার গরুর সাথে ছাগল ফ্রি!

পাঁচ লাখ টাকার গরু সাথে ফ্রি ছাগল!

প্রতিচ্ছবি যশোর প্রতিনিধি :

আকর্ষণীয় পোস্টারে এলাকা ছেয়ে গেছে। কোরবানির জন্য বিরাট গরু বিক্রি হবে। আর গরুটি কিনলে আকর্ষণীয় ছাগল ফ্রি। পোস্টারের এই আকর্ষণীয় গরুর দাম হাঁকা হচ্ছে ৫ লাখ টাকা। ইতোমধ্যে সাড়ে ৩ লাখ টাকা দামও উঠেছে।

এই আলোচিত গরুটির মালিক যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার খর্দ্দবনগ্রামের হাজী মোজাহার বিশ্বাসের ছেলে আলতাফ হোসেন। তিনি জানান, তিন বছর ধরে এটি লালন পালন করে বিক্রির উপযোগী করেছেন।

আলতাফ হোসেনের বাড়িতে গিয়ে দেখা গেছে, আঙিনায় টিনশেডের আধাপাকা গোয়ালঘরে রাখা হয়েছে সেই বিশাল গরু। শেকল ও দড়িতে বাঁধা লালচে কালো রঙের গরুর মাথার ওপর ফ্যান ঘুরছে।

দু’একজন গরুটিকে বাইরে আনতে পারে না বলেই গোসল-খাওয়া সবই গোয়ালঘরে।

আলতাফ হোসেন জানান, প্রায় তিন বছর আগে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার বারোবাজার থেকে ৬০ হাজার টাকায় বাছুরসহ একটি গাভী কিনেছিলেন তিনি। নাদুসনুদুস বাছুরটি দু’বছরে বেশ বড় হয়। গত ৮-৯ মাসে বেশ মোটাতাজা হয়েছে।

গরুটিকে প্রতিদিন ৫ কেজি খুদের (ভাঙ্গা চাল) ভাত, ১ কেজি খৈল, পর্যাপ্ত পরিমাণ বিচালি, ঘাস ও ভুশি খাওয়ানো হয়। এছাড়াও মৌসুমী ফল কাঁঠালসহ বিভিন্ন রকমের ফল খাওয়ানো হয়েছে। প্রতিদিন গড়ে ৫’শ টাকা খরচ হয় গরুটির পেছনে। গরুটির বর্তমান ওজন প্রায় ২০ মণ।

আলতাফ হোসেন আরও জানান, গরুটি কোরবানির জন্য বিক্রির টার্গেট নিয়েছেন। গরুটির দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৫ লাখ টাকা। গরুটি বিক্রির জন্য ইতোমধ্যে রঙিন পোস্টার ছাপানো হয়েছে। ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে পোস্টার গ্রাম-গঞ্জে পোস্টার লাগানো হয়েছে।

পোস্টারে একটি ছাগলের ছবিও ছাপানো হয়েছে। উল্লেখ করা হয়েছে, গরু কিনলে ছাগল ফ্রি। ছাগলটির ওজন ১০ কেজি মত হবে। ইতোমধ্যে গরুর দাম সাড়ে ৩ লাখ টাকা উঠেছে। কিন্তু তিনি বিক্রিতে রাজি হননি।

৫ লাখ টাকার কম বিক্রি করবেন না। কমে বিক্রি করলে খরচ উঠবে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আলতাফ হোসেনের স্ত্রী মমতাজ বেগম জানান, ছোট্ট থেকে গরুটি লালন পালন করেছেন। পরিবারের সবাই মিলেই দেখাশুনা করেন। এই গরুর সঙ্গে যে ছাগলটি ফ্রি দেওয়া হবে, সেটিও তাদের বাড়িরই ছাগল।

সাজেদ রহমান/এ আর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে