আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > বিনোদন-সংস্কৃতি > হ্যাথাওয়ের আই ক্লাউডে হ্যাকারদের হানা, নগ্ন ছবি ফাঁস

হ্যাথাওয়ের আই ক্লাউডে হ্যাকারদের হানা, নগ্ন ছবি ফাঁস

 

anne-hathaway

প্রতিচ্ছবি বিনোদন ডেস্ক:

সাইবার দুনিয়ার হ্যাকারদের হাত থেকে নিস্তার নেই সেলিব্রিটিদেরও। সে হোক না যতই বড় তারকা। এর আগে একাধিক অভিনেত্রীর ব্যক্তিগত ছবি ও ভিডিও চুরি করে নেটদুনিয়ায় ছড়িয়ে দিয়েছে হ্যাকাররা। এবার তার শিকার হলেন প্রখ্যাত অভিনেত্রী অ্যানা হ্যাথাওয়ে। সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে ছড়িয়ে পড়ল তাঁর অসংখ্য নগ্ন ছবি।

আজ বুধবার এ ঘটনা ঘটে। অস্কার জয়ী অভিনেত্রীর নগ্ন ছবির লিংক প্রথম প্রকাশ করা হয় দুটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ‘টাম্বলার’ ও ‘রেডিট’-এ। সেখান থেকে ভাইরাল হয়ে পড়ে অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

সঙ্গে সঙ্গে ‘প্রিন্সেস ডায়েরি’ তারকাকে নিয়ে টুইটারে যেন ঝড় শুরু হয়ে যায়। টুইটার ব্যবহারকারীদের আলোচনায় এখন অ্যান হাথাওয়ে শীর্ষ তালিকায় আছেন। তবে বেশির ভাগ মানুষ তাঁর পক্ষেই বলছেন।

হ্যাথাওয়ের ভক্তরা সোচ্চার হয়ে এই ‌‘হ্যাকিং’-এর বিরুদ্ধে টুইট করছেন। কেউ বলছেন, এটা প্রযুক্তি-সন্ত্রাস। ব্যক্তিগত গোপনীয়তায় আঘাত।

তারকা বা হলিউড হ্যাংকিয়ের শিকার হচ্ছেন নিয়মিত। সনির সার্ভার থেকে অনেক গোপন তথ্য চুরি হয়ে গিয়েছিল। জনপ্রিয় টিভি সিরিজ গেম অব থ্রোনসের নতুন মৌসুমের বেশ কিছু পর্বও চলে এসেছে ইন্টারনেটে। তারকাদের গোপন ছবিও এখন আর গোপন থাকছে না।

এর আগে এই ঘটনার শিকার হয়েছিলেন মাইলি সাইরাস থেকে জেনিফার লরেন্সের মতো তারকারা। আই ক্লাউড-এর সিকিউরিটি ভেঙেই এ কাজ করে তারা। হাতিয়ে নেয় অজস্র ব্যক্তিগত ছবি। যা ক্রমে ক্রমে ছড়িয়ে দেওয়া হয় নেটদুনিয়ায়।

গত এপ্রিলে হ্যাকিংয়ের শিকার হয়েছিলেন মার্কিন পপ তারকা মাইলি সাইরাস। ২০১৪ সালের ৩১ আগস্ট বিভিন্ন তারকার প্রায় ৫০০টি ব্যক্তিগত ছবি তাঁদের অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে ইন্টারনেটে প্রকাশ করা হয়। সেগুলো দ্রুত ছড়িয়েও পড়ে। হ্যাকিংয়ের শিকার তারকাদের অধিকাংশ ছিলেন নারী, বেশির ভাগ ছবিই ছিল খুবই স্পর্শকাতর। সেই ‌‌‘আতঙ্ক’ এখনো পিছু ছাড়েনি বলে জানান ‘হাঙ্গার গেমস’ খ্যাত তারকা জেনিফার লরেন্স। হিন্দুস্তান টাইমস।

এসএম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে