জিপি এক্সিলারেটর চতুর্থ ব্যাচের যাত্রা শুরু

20731495_2008598232708195_2030630559_n

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক :

পাঁচটি উদ্ভাবনী প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান নিয়ে যাত্রা শুরু করলো গ্রামীণফোনের জিপি এক্সিলারেটর কর্মশালা। প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- আমার উদ্যোগ, ডক্টর কই, বাড়ি কই, অল্টার ইয়ুথ ও মার্স।

বুধবার রাজধানীর বসুন্ধরায় গ্রামীণফোনের প্রধান কার্যালয় জিপি হাউজে এক অনাড়ম্বর আয়োজনের মধ্য দিয়ে যাত্রা শুরু করে ৫টি নতুন প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- তথ্যমন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু। উদ্ভাবনী প্রতিষ্ঠানগুলোকে সুযোগ করে দেয়ায় জিপি এক্সিলারেটরকে ধন্যবাদ জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, দেশের ডিজিটালাইজেশনকে এগিয়ে নিতে নতুন প্রযুক্তি আরো সহায়তা করবে। তাই, আরো বেশি প্রযুক্তিগত উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।

তথ্যমন্ত্রী আরো বলেন, বাংলাদেশকে ডিজিটাল করার লক্ষ্যে ২০০৯ সাল থেকেই সরকার বিভিন্ন প্রকল্প হাতে নিয়েছে। এখন সরকারি সব কাজেই প্রযুক্তি ব্যবহার হচ্ছে। প্রযুক্তির উন্নয়নে বাজেট বাড়ানো হয়েছে। কর্মশালায় জিপি এক্সিলারেটর তৃতীয় ব্যাচের প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের সফলতা তুলে ধরে।

তৃতীয় ব্যাচের সফল উদ্ভাবনী প্রতিষ্ঠানগুলো হলো-

বাইনো: যারা শিশুদের পড়াশোনায় মনযোগ বাড়াতে প্রযুক্তিভিত্তিক বই উদ্ভাবন করেছে। যার মাধ্যমে শিশুরা খেলতে খেলতে পড়াশোনা করতে পারবে বলে জানায় প্রতিষ্ঠানটি।

ব্যাংক কম্পেয়ার বিডি: এই প্রতিষ্ঠানটি দেশের ব্যাংকগুলোতে একটি ওয়েবসাইটে অন্তর্ভুক্ত করেছে। এর ফলে ব্যাংক গ্রাহকদের ভোগান্তি কমবে বলে আশা করছে প্রতিষ্ঠানটি।

জলপাই: এই প্রতিষ্ঠানটি একটি ভিন্নধর্মী ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস উদ্ভাবন করেছে। যা বাসাবাড়িতে গ্যাসের কারণে সংঘটিত দুর্ঘটনা সম্পর্কে আগে থেকেই সংকেত দেয়। এতে এই ধরণের দুর্ঘটনার পরিমাণ কমবে বলে জানায় জলপাই।

কর্মশালায় গ্রামীণফোন, জিপি এক্সিলারেটর, বিভিন্ন উদ্ভাবনী ভাবনার অসংখ্য তরুণ উদ্যোক্তা ও গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এ আর / এম এম

Top