আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > আইন-মানবাধিকার > শিবিরের ১২ নেতাকর্মীকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে ছাত্রলীগ

শিবিরের ১২ নেতাকর্মীকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে ছাত্রলীগ

%e0%a6%86%e0%a6%9f%e0%a6%959_113690_121433-1

প্রতিচ্ছবি রাজশাহী প্রতিনিধি:

তল্লাশি চালিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শহীদ সোহরাওয়ার্দী হল থেকে শিবিরের ১২ নেতাকর্মীকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১২টা থেকে ভোর ৪টা পর্যন্ত হলের বিভিন্ন কক্ষ থেকে তাদের আটক করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে বিভিন্ন জিহাদি বই, শিবিরের রিপোর্ট বই ও দুটি কম্পিউটারসহ নগদ ১৯ হাজার টাকা জব্দ করা হয়। অভিযানের সময় তাদের মারধর করেন এবং পরে ভোর ৪টার সময় মতিহার থানা পুলিশের কাছে তাদের হস্তান্তর করে ছাত্রলীগ।

আটকৃতরা হলেন, জোহা হল শাখা শিবিরের সেক্রেটারি ও ইসলামের ইতিহাস বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী জাকির হোসেন, নৃবিজ্ঞান বিভাগ চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী আশিকুল হাসান নাফিস, ফারসি ভাষা ও সাহিত্য মাস্টার্সের শিক্ষার্থী আরিফুল ইসলাম, আইন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী রাকিব আহমেদ, উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মাহমুদুল হাসান, পরিসংখ্যান চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী শরিফুল ইসলাম, পরিসংখ্যান বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী শাহানুর আলম হিমেল, ইনফরমেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী সাহেব রানা, ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আব্দুর রাকিব, আরবি বিভাগের মাস্টার্সের নাবিউল ইসলাম, অলিউল ইসলাম ও একই বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী গোলাম রাব্বানী।

হল সূত্র জানায়, মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে রাবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া ও সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনুর নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা সোহরাওয়ার্দী হলের ১৪৩ নম্বর কক্ষে সাহেব রানাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। তার কাছে শিবিরের বিভিন্ন তথ্য, ডকুমেন্ট ও ক্রেস্ট পাওয়ার পর তার দেওয়া তথ্য অনুসারে হলের ১৪৮, ১৫৫, ১৫০, ২৪৯, ২৫৪, ২৭৬, ৩৫৮, ৩৬০ ও ৩৬২ নম্বর কক্ষে অভিযান চালান। এ সময় তাদের কাছ থেকে বিভিন্ন জিহাদি বই ও শিবিরের রিপোর্ট বই, ডায়েরি, অর্থ বিভাগের ১৯ হাজার টাকা ও শিবিরের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতকর্মীর তালিকা পাওয়া যায়।

রাবি ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া বলেন, ‘গোয়েন্দা ও প্রশাসনে কাছ থেকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আমরা সোহরাওয়ার্দী হলের সাহেব রানা ও নাবিউলকে জিজ্ঞাসাবাদ করি। এদের প্রত্যেকেই শিবিরের সঙ্গে যুক্ত থাকার কথা স্বীকার করেছে।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মতিহার থানার তদন্ত তদন্ত কর্মকর্তা মাহবুব হোসেন বলেন, ‘ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ১২ জন শিবিরে নেতাকর্মীকে আটক করে আমাদের হাতে সোপর্দ করেছেন। তাৎক্ষণিকভাবে অধিকাংশই শিবিরের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার কথা স্বীকার করেছে।’

এম এম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে