আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > আন্তর্জাতিক > অযোধ্যা মামলা: মন্দির থেকে দূরে বাবরি মসজিদ নির্মাণ করতে হবে

অযোধ্যা মামলা: মন্দির থেকে দূরে বাবরি মসজিদ নির্মাণ করতে হবে

বাবরি মসজিদ ইস্যু: মসজিদ স্থাপন হবে অন্যত্র
অযোধ্যায় মসজিদ না মন্দির স্থাপিত হবে তা নিয়ে ছিল বিতর্ক।

প্রতিচ্ছবি ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক:

অযোধ্যা সুপ্রিম কোর্টে শিয়া ওয়াকফ বোর্ড কর্তৃক রায়ে বলা হয়, মুসলিমদের জন্য নতুন করে মন্দির থেকে যুক্তিসঙ্গত দুরত্বে আরেকটি মসজিদ স্থাপন করা যাবে। এ নিয়ে শুরু হয়েচ্ছে আবার নতুন বিতর্ক।

ভারতের সর্বোচ্চ আদালত এতদিন এ সংক্রান্ত কোন রায় না দিয়ে উভয় সম্প্রদায়কে পরামর্শ দিয়েছিল যাতে দুই পক্ষ আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান করে। বোর্ডে সুপ্রিম কোর্টের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে, বাবরি মসজিদটি শিয়া মুসলিমদের সম্পত্তি ছিল । তারাই এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়। রাম মন্দির ও মসজিদ একসাথে পরিচালিত হলে নতুন করে হাঙ্গামা তৈরির আশংকা। তাই এবার হলফনামা দিয়ে শিয়া ওয়াকফ বোর্ড জানিয়ে দিল, অযোধ্যায় রামের জন্মভূমি থেকে মসজিদ সরিয়ে কোন মুসলমান অধ্যুষিত এলাকায় নিয়ে যাওয়া হোক। তাদের মতে দুই ধর্মের কাজ দুইদলের মানুষকে বিরক্ত করতে পারে তাই দূরে সরিয়ে নেয়াই ভাল।

তবে এই রায়ে মুসলমান্দের প্রতিক্রিয়া কি হবে তা এখনো বোঝা যাচ্ছেনা। ইতোমধ্যে  সুপ্রিম কোর্টে এই সপ্তাহ থেকেই শুরু হবে রাম মন্দির সংক্রান্ত মধ্যে।

সুপ্রিম কোর্ট ইতিমধ্যেই ৩ বিচারপতিকে নিয়ে একটি বেঞ্চ গঠন করেছে যাঁরা অযোধ্যার বাবরি মসজিদ এলাকার বিতর্কিত জমি নিয়ে এলাহাবাদ হাইকোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে যে মামলা হয়েছে, তার শুনানি শুরু হবে ১১ অগাস্ট থেকে।

প্রসঙ্গত, ভারতের সর্বোচ্চ আদালত বলেছে ১৯৯০’র দশকে অযোধ্যায় বাবরি মসজিদ ধ্বংসের জন্য ক্ষমতাসীন বিজেপির সিনিয়র নেতাদের বিচারের মুখোমুখি হতে হবে। আদালতের এ আদেশ বিজেপি’র সাবেক প্রধান লাল কৃষ্ণ আদভানি এবং তার সহকর্মীদের জন্য একটি বড় ধাক্কা হিসেবে মনে করা হচ্ছে। অভিযোগ রয়েছে তৎকালীন বিজেপি নেতৃত্বের ‘উস্কানিমূলক’ বক্তব্যের কারণে হিন্দুরা ১৯৯২ সালে অযোধ্যায় বাবরি মসজিদ ধ্বংস করেছিল।

সূত্র: এন ডি টিভি

এন টি

 

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে