আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > রংপুর > সাঁওতাল পল্লীর মালামাল উদ্ধারে পিবিআই’র অভিযান

সাঁওতাল পল্লীর মালামাল উদ্ধারে পিবিআই’র অভিযান

%e0%a6%b8%e0%a6%be%e0%a6%81%e0%a6%93%e0%a6%a4%e0%a6%be%e0%a6%b2-%e0%a6%a8%e0%a6%bf%e0%a6%a7%e0%a6%a8

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক :

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের সাঁওতাল পল্লীতে ব্যাপক হামলা, ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ এবং পুলিশের গুলিতে তিন সাঁওতাল ব্যক্তিকে নির্বিচারে হত্যার পরে এখন লুটপাট হওয়া মালামাল উদ্ধারে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

সোমবার (৭ আগস্ট) দুপুর ১২টায় পিবিআই গাইবান্ধার সদস্যদের এ অভিযান শুরু হয়।

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে রংপুর চিনিকলের সাহেবগঞ্জ আখ খামারের জমি সাঁওতালদের দখলমুক্ত করতে গত বছরের ৬ নভেম্বরে এই পুলিশি অভিযান চালানো হয়।

চিনিকলের জমি থেকে সাঁওতালদের উচ্ছেদ করতে গেলে পুলিশের সঙ্গে সাঁওতালদের তুমুল সংঘর্ষের জের ধরে মৃত্যু ঘটে মঙ্গল মাদ্রি, শ্যামল হেমভ্রম, রমেশ সরেন নামে তিন সাঁওতালের ।

গাইবান্ধার ওই এলাকার (গাইবান্ধা-৪) আওয়ামী লীগের সাংসদ আবুল কালাম আজাদ ও গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সাপমারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাকিল আলম বুলবুলের নেতৃত্বে পূর্বপরিকল্পিতভাবে সাঁওতালদের ওপর হামলা চালানো হয়েছিলো বলে দাবি এলাকাবাসীর।

অথচ এই বুলবুল-ই একসময় সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্ম ভূমি উদ্ধার কমিটির সভাপতি ছিলেন!

পিবিআই গাইবান্ধা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, গত বছরের ৬ নভেম্বর সাঁওতাল পল্লীতে হামলার সময় সাঁওতালদের ঘরের টিন, শ্যালো মেশিনসহ বিভিন্ন মালামাল লুটপাটের ঘটনা ঘটে। এসব লুটপাট হওয়া মালামাল এলাকার বিভিন্ন প্রভাবশালী ব্যক্তির বাড়িতে আছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালানো হচ্ছে।

তিনি আরও জানান, অভিযানে ঘরের টিনসহ বেশ কিছু মালামাল ইতোমধ্যে জব্দ করা হয়েছে। অভিযান এখনও অব্যাহত রয়েছে। অভিযান শেষ হলে জব্দ করা মালামালের তালিকা করে লুটপাটের সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এফ এইচ / এম এম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে