আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > আন্তর্জাতিক > ধর্ষককে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যায় বাবা পেয়েছেন সান্ত্বনা

ধর্ষককে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যায় বাবা পেয়েছেন সান্ত্বনা

ধর্ষককে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যায় বাবা পেয়েছেন সান্ত্বনা

প্রতিচ্ছবি ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক:

তিন বছরের মেয়ের ধর্ষককে জনসম্মুখে গুলি করে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের দৃশ্য দেখে সান্ত্বনা ও তৃপ্তির হাসি ফুটে উঠে মেয়েটির বাবার মুখে। তবে এখনো মেয়ে হারানোর শোক তাড়িয়ে বেড়ায় বাবাকে।

গত ৩১ জুলাই তিন বছরের শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে ৪১ বছর বয়সী এক ধর্ষককে জনসম্মুখে গুলি চালিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছে ইয়েমেনের সেনাবাহিনী। সোমবার ইয়েমেনের রাজধানী সানায় একটি পাবলিক স্কয়ারে ওই ব্যক্তির মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে। ব্রিটিশ দৈনিক ডেইলি মেইল এক প্রতিবেদনে বলছে, সোমবার সানায় মুহাম্মদ আল-মাঘরাবি নামের এক ধর্ষককে একটি একে রাইফেল দিয়ে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। সব টিভি চ্যানেলে প্রচার করা হয় এটি।

ইয়াহিয়ার তিন বছরের মেয়ে রানা আল-মাতারিকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে ধর্ষণের পর হত্যা করে আল-মাঘরাবি। পরে ইয়েমেনের শরীয়াহ আদালত এই ধর্ষককে জনসম্মুখে গুলি চালিয়ে হত্যার নির্দেশ দেন।

মেয়ের ধর্ষকের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর দেখার পর ব্রিটিশ দৈনিক ডেইলি মেইলকে দেয়া বিশেষ এক সাক্ষাৎকারে ইয়াহিয়া আল-মাতারি বলেন, ‘আমি মনে করি; আমার পুনর্জন্ম হয়েছে। এটা আমার জীবনের প্রথম দিন। আমি এখন মুক্তি পাচ্ছি।’

শহরের প্রধান স্কয়ারে ওই ধর্ষকের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর দেখতে হাজার হাজার মানুষ আশ-পাশে অবস্থান নেন। সোমবার মাঘরাবিকে প্রিজন ভ্যানে করে সানার ওই স্কয়ারে নেয়া হয়। পরে পেছন থেকে পিঠে গুলি চালিয়ে তাকে হত্যা করা হয়। তবে ওই শিশুকে ধর্ষণ ও হত্যার ঠিক কতদিনের মাথায় ধর্ষকের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হলো সে বিষয়ে তথ্য দেয়নি ডেইলি মেইল। মেয়েটির বাবা বলেন, ‘আমরা তার ছোট্ট মরদেহ নিয়ে পাশের একটি কবরস্থানে দাফন করেছি। স্ত্রী জামিলাহ ও আমি সৃষ্টিকর্তার কাছে কৃতজ্ঞ। ন্যায় বিচার এবং আল্লাহর শাসনের জয় হয়েছে।’

আদালতে ধর্ষক তার অপরাধ স্বীকার করলে, তাকে বেত্রাঘাতের হুকুম দেয়া হয়। কিন্তু পরে জনগণের প্রবল তোপের মুখে প্রকাশ্যে অপরাধীকে গুলি করে হত্যার হুকুম দেয়  ইয়েমেনের আদালত।

এন টি

 

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে