আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > রাজনীতি > মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ, প্রধানমন্ত্রীর অনুমতির অপেক্ষায় এরশাদ

মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ, প্রধানমন্ত্রীর অনুমতির অপেক্ষায় এরশাদ

%e0%a6%8f%e0%a6%b0%e0%a6%b6%e0%a6%be%e0%a6%a6

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:

দেশে চলমান নানা চিত্র তুলে ধরে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর অনুমতি পেলেই মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করবেন তারা।

ঢাকার বনানীতে বৃহস্পতিবার পার্টির চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দেশের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি নিয়ে সরকারের সমালোচনা করেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এরশাদ। হতাশা প্রকাশ করে সাবেক সামরিক শাসক এরশাদ বলেন, ‘দেশে এখন মহাক্রান্তিকাল; ক্ষমতার তুফান বইছে।’

তার দলের নেতারা মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করছেন কি না জানতে চাইলে এরশাদ বলেন, ‘আমরাই বিরোধী দল। যদিও আমরা সরকারে আছি, আমাদের তিনজন মন্ত্রী ক্ষমতায় আছে… এটা আমাদের জন্য লজ্জার ব্যাপার। আশা করি এই লজ্জার হাত থেকে একদিন আমরা মুক্তি পাব।’

এক প্রশ্নের জবাবে এরশাদ বলেন, ‘আমাদের সবাইকে  পদত্যাগ করতে হবে। আমি উনাকে (প্রধানমন্ত্রী) এ বিষয়ে বলেছি। কথা হচ্ছে- উনি ( প্রধানমন্ত্রী) আমাকে এই পদটা দিয়েছেন, সম্মান দিয়েছেন। উনার সাথে আলোচনা না করে আমি উনাকে অসম্মান করতে চাই না। একটা সম্মানের ব্যাপার আছে।’

কবে নাগাদ পদত্যাগ করতে পারেন- এই প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘পদত্যাগ হবে। তোমরা জানো তো….সবই জানো। একটা অনুমতির দরকার আছে। আশা করি কিছুদিনের মধ্যে পাব।’

প্রসঙ্গত, জাতীয় পার্টির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আনিসুল ইসলাম মাহমুদ আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকারের পানিসম্পদমন্ত্রী। এছাড়া মুজিবুল হক চুন্নু শ্রম মন্ত্রণালয় এবং মশিউর রহমান রাঙ্গা পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মান্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বে আছেন। বিএনপিবিহীন দশম জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো চেয়ারম্যান রওশন এরশাদ। আর এরশাদ নিজে আছেন প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূতের দায়িত্বে।

বুধবার রাতে বিকল্পধারা বাংলাদেশের চেয়ারম্যান এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর বাড়িতে যে বৈঠক হয়, সেখানে জাতীয় পার্টির কো চেয়ারম্যান জি এম কাদেরেরে উপস্থিতি নিয়েও এরশাদকে প্রশ্ন করেন সাংবাদিকরা।

জবাবে এরশাদ বলেন, সাবেক রাষ্ট্রপতি বদরুদ্দোজা চৌধুরী সাহেবকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ইফতারের দাওয়াত করেছিলেন, তার অর্থ তিনি সরকারের বিরুদ্ধে নন; না হলে আর কাউকে তো তিনি আমন্ত্রণ করেননি। সেই অনুষ্ঠানে তিনি আমার পাশে বসেছিলেন। এর মধ্যে দিয়ে কি প্রতীয়মান হয় না যে তিনি মিত্রবাহিনীতে আছেন?’

বিকল্পধারা বাংলাদেশের সঙ্গে জাতীয় পার্টির জোট করার কোনো সম্ভাবনা রয়েছে কি না- এ প্রশ্নে এরশাদের পাশে বসা জিএম কাদের বলেন, “আমরা বরাবরই বলে আসছি, আওয়ামী লীগ-বিএনপির বাইরে আমরা একটি পৃথক রাজনৈতিক শক্তি হিসেবে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করতে চাই। গতকাল একটি বৈঠক ছিল, সেখানে রাজনৈতিক ব্যক্তিরা ছিলেন। কিছু রাজনৈতিক আলোচনা হয়েছে- তবে সিদ্ধান্ত গ্রহণের মতো কথা সেখানে হয়নি।

“এখন এ বিষয়ে প্রেসিডিয়াম ফোরামে আলোচনা হবে- আলোচনার পর সিদ্ধান্ত হবে- জোট হবে কি না।”

এম এম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে