আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > ক্যাম্পাস > নোট-গাইড ও কোচিং বন্ধে আইন : শিক্ষামন্ত্রী

নোট-গাইড ও কোচিং বন্ধে আইন : শিক্ষামন্ত্রী

১৭ মে ২০১৭,

120026_174

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক
উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে গবেষণা ও জ্ঞান চর্চা বাড়াতে হবে এবং বদলাতে হবে প্রযুক্তি আমদানির মানসিকতা এমনটাই মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। এছাড়া শিঘ্রই নোট, গাইড ও কোচিং বন্ধে আইন করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি।
বৃহস্পতিবার জাতীয় শিক্ষা ব্যবস্থাপনা একাডেমি (নায়েম) অডিটরিয়ামে শিক্ষা মন্ত্রণালয়াধীন শিক্ষাখাতে উচ্চতর গবেষণা সহায়তা কর্মসূচি সংক্রান্ত কর্মশালা ও চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
তিনি বলেছেন, ‘উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে গবেষণা ও জ্ঞান চর্চা বাড়াতে হবে। প্রযুক্তি ও জ্ঞান শুধু আমদানি করার মানসিকতা বদলাতে হবে। আমাদের নিজস্ব সমস্যার সমাধানের লক্ষ্যে নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবন ও তার ব্যবহার করতে হবে। আমরা জ্ঞান ও প্রযুক্তি রপ্তানি করতে পারি, সেই জায়গায় আমাদের যেতে হবে।’
অনুষ্ঠানে বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী আরো বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের প্রাইভেট পড়ানো, নোট-গাইড বিক্রি ও কোচিং করানো হচ্ছে। এসব শিক্ষকদের কারণে আমরা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছি। আশা করি তারা এ পথ থেকে সরে আসবেন। সরে না আসলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হবো। নোট-গাইড ও কোচিং বন্ধে আইন করা হচ্ছে।’
তিনি আরো বলেন, ‘উচ্চতর এবং ফলিত গবেষণার জন্য ২০১০ থেকে ২০১৫ পর্যন্ত ১১৩টি গবেষণা প্রকল্পে ২১ কোটি ৭৭ লাখ টাকা ব্যয় হয়েছে। চলমান গবেষণা কার্যক্রমের আওতায় ২০১৬ থেকে ১৭ অর্থবছরে ১৫ কোটি ৩৯ লাখ ৯২ হাজার টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।’
পরে মন্ত্রী ১৬৬টি গবেষণা প্রকল্পের অনুকুলে ১২ কোটি ৬০ লাখ ২২ হাজার টাকার চেক বিতরণ করেন। ১০টি প্রকল্পের তৃতীয় কিস্তি, ৮০টি প্রকল্পের দ্বিতীয় কিস্তি এবং ৭৬টি প্রকল্পের প্রথম কিস্তির টাকার চেক হস্তান্তর করা হয়। গবেষণা প্রকল্পের অনুদান, মুখ্য গবেষক ও সহকারি গবেষকের সম্মানী হিসেবে এ চেক তুলে দেয়া হয়।
মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. আব্দুল্লাহ আল হাসান চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক প্রফেসর ড. এস এম ওয়াহিদুজ্জামান, নায়েমের মহাপরিচালক অধ্যাপক প্রফেসর মো. হামিদুল হক, গবেষণা বাছাই কমিটির চেয়ারম্যান প্রফেসর প্রফেসর ড. মেসবাউদ্দিন আহম্মেদ এবং ব্যানবেইসের পরিচালক মো. ফসিউল্লাহ বক্তব্য রাখেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে