আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > আন্তর্জাতিক > শারীরিক সম্পর্কে স্বামীকে বাধা নির্যাতনের সামিল: সংসদে মালয়েশিয়ান এমপি

শারীরিক সম্পর্কে স্বামীকে বাধা নির্যাতনের সামিল: সংসদে মালয়েশিয়ান এমপি

শারীরিক সম্পর্কে স্বামীকে বাধা নির্যাতনের সামিল: সংসদে মালয়েশিয়ান এমপিপ্রতিচ্ছবি ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক:

বিয়ের পর একজন নারীর সর্বসত্তার অধিকারী হন তার স্বামী। যখন যেভাবে খুশি নারীকে ব্যবহার করা যায়। এমনকি যখন স্বামী তার সাথে যৌন সম্পর্ক চায়, তখন যদি সেই স্ত্রী বাধা দেয় তাহলে সেটা স্বামীর প্রতি মানসিক ও  শারিরীক নির্যাতন। এ মন্তব্য করেই  বিপাকে পড়েছেন মালয়শিয়ার এক সংসদ সদস্য।

বুধবার জাতীয় সংসদে নারীর প্রতি পারিবারিক নির্যাতন রোধ নিয়ে আলোচনায় অংশ নিয়ে বিতর্কিত এ মন্তব্য করেন ক্ষমতাসীন জোটের চে মোহাম্মদ জুলকিফলি। সেসময় মালয়শিয়ায়  পারিবারিক  নির্যাতন নিয়ে যেসব আইন রয়েছে তা নিতে মত বিনিময় চলছিল।

তেরেংগানু প্রদেশের ৫৮ বছর বয়সী এই রাজনীতিবিদ বলেন, “যখন একজন স্ত্রী মিলনে তার অনিচ্ছা প্রকাশ করে তখন স্বামী শারিরীকের চেয়ে মানসিক বিষাদে ভোগে।  যদিও বলা হয়ে থাকে পুরুষেরা নারীর থেকে বেশি শক্তিশালী, কিন্তু যৌন সংযোগে তাদের বিপরীত আচরণ পুরুষ নির্যাতনের সামিল। যা কোনভাবেই মেনে নেয়া যায়না। একজন স্ত্রী মানেই সর্বদা স্বামীর অনুগত থাকবে।”

পার্লামেন্টে তখন  মূলত পারিবারিক নির্যাতন রোধের কার্যকরী পদক্ষেপ নিয়ে কথা হচ্ছিল। তখন চে মোহাম্মদ আরো বলেন, একজন স্ত্রী যখন তার স্বামীকে শারিরীক সংযোগ থেকে বিরত রাখবে তখন মুসলিম আইন অনুযায়ী স্বামী যদি অন্যকোন মহিলাকে বিয়ে করেন, বা করতে চান তাহলে সেটাও একধরনের নির্যাতন।

এমন মন্তব্যের পরেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যপক সমালোচনার ঝড় ওঠে। এএফপি সংবাদমাধ্যমকে নারী অধিকার প্রতিষ্ঠা কর্মী, সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাতির মোহাম্মদের মেয়ে মারিনা মাহাতির বলেন, “এটা একটি বদ্ধমূল পুরনো ধারণা , বিয়ের পর একজন মেয়ের সবকিছুর মালিক হবেন তার স্বামী, তার পূর্ণ স্বাধীনতা ও অধিকার আছে যৌনক্রিয়াকে না বলার। এটা খুব হাস্যকর যে, নারী না বললেই পুরুষ নির্যাতিত হচ্ছে।” মারিনা তার ফেসবুক থেকে দেয়া একটি পোস্টে বলেন, এখনো আমরা সেই পুরুষতান্ত্রিক সমাজে বাস করছি’

কিছুদিন আগে এই সংসদ সদস্য বেফাঁস কথা বলে আরো একবার সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন। তিনি বলেছিলেন, ধর্ষকের সাথে ধর্ষিতার বিয়ে ব্যাপারটা খুব স্বাভাবিক।

সূত্র: বিবিসি

এন টি

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে