আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > ফ্যাশন এন্ড বিউটি > সৌন্দর্য্য বৃদ্ধিতে অ্যালোভেরা

সৌন্দর্য্য বৃদ্ধিতে অ্যালোভেরা

সৌন্দর্য্য বৃদ্ধিতে অ্যালোভেরাপ্রতিচ্ছবি ডেস্ক:

ত্বকের যত্নে সবচেয়ে ভালো প্রাকৃতিক উপাদান। বাজারে হরেক রকমের রাসায়নিক পণ্য থাকলেও, প্রাকৃতিক উপাদানের ব্যবহার প্বার্শপ্রতিক্রিয়া মুক্ত। এসব কিছুর মধ্যে গুণগত মানে অ্যালোভেরা ব্যবহার সর্বাধিক। হাতে পায়ে মুখে চুলে যেকোন জায়গায় ব্যবহার করা যায় এটি। উপকারীতাও দারুণ। ঘৃতকুমারী নামেও পরিচিত এই উদ্ভিদটি আমাদের ত্বকের যত্নে বেশ কার্যকর।

অ্যালোভেরা ত্বকের যত্নে খুবই উপকারী। ত্বকের রোদে পোড়া ভাব দূর করতে, মসৃণ রাখতে, দাগ মুক্ত করতে এবং ত্বকে ব্রণের উপদ্রব কমাতে অ্যালোভেরার তুলনা নেই। যাদের ত্বক অত্যন্ত সংবেদনশীল তারা কেমিকেল ব্যবহার না করে `নাইট ক্রিম` হিসেবে অ্যালোভেরা ব্যবহার করতে পারেন। নিয়মিত ব্যবহার করতে বাড়িতেই লাগাতে পারেন অ্যালোভেরা গাছ। এতে প্রতিদিন তাজা পাতা পাওয়া নিশ্চিত হবে। ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রাখতে খুব কার্যকরী।

সৌন্দর্য্য বৃদ্ধিতে অ্যালোভেরাঅ্যালোভেরা ত্বকে লাগাতে হলে প্রথমেই মুখ পরিষ্কার করে ধুয়ে নিতে হবে। এরপর একটি তাজা অ্যালোভেরার ভেতরের অংশ থেকে রস সংগ্রহ করে নিন। সেই রস তুলোর সাহায্যে পুরো মুখে লাগিয়ে নিন। রস শুকিয়ে গেলে এভাবেই ঘুমিয়ে পড়তে পারেন। সারারাত অ্যালোভেরার রস ত্বকের নানা সমস্যা দূর করতে ভূমিকা রাখবে।

তুলো বা সুতি কাপড় ছাড়া অন্যকিছু দিয়ে ত্বকে অ্যালোভেরা লাগানো ঠিক নয়। তাতে অ্যালার্জী হওয়ার ঝুকি তৈরি হয়। অনেক সময় ত্বকে ক্ষত দেখা দেয়। এ ধরনের ক্ষতে নির্ভয়ে ব্যবহার করা যায় অ্যালোভেরা। এতে ক্ষত স্থান দ্রুত মসৃণ হয়। শুধু মুখের জন্য নয়, পুরো শরীরে ব্যবহার করা যায় অ্যালোভেরা। এক্ষেত্রে সাবধানতা হলো, অ্যালোভেরার রস ত্বকে লাগিয়ে রোদে যাওয়া যাবে না। তাতে উল্টো ত্বকের ক্ষতি হতে পারে।

অ্যালোভেরা একটি বাটিতে নিয়ে ফ্রিজে সংরক্ষণ করতে পারেন। রোদ থেকে ফিরে ঠান্ডা অ্যালোভেরা লাগালে রোদেপোড়ার চান্স অনেকাংশে কমে যায়। উজ্জ্বল হয় ত্বক।

এন টি

 

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে