আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > জাতীয় > কাঁদলেন শেখ হাসিনা: বাবা বেহেশত থেকে দেখেন তাঁর মানুষ ভালো আছে

কাঁদলেন শেখ হাসিনা: বাবা বেহেশত থেকে দেখেন তাঁর মানুষ ভালো আছে

sheikh-hasina

১৭ মে ২০১৭,

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:
৩৭ তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে নেতাকর্মীদের শুভেচ্ছায় সিক্ত হলেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।
সকালে গণভবনে নেতাকর্মীরা তাঁকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। তিনিও কর্মীদের খোঁজ খবর নেন। সে সময় উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চেৌধুরী, শেখ সেলিমসহ সরকারের মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা।
পরে বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রী। আবেগজড়িত কন্ঠে ৭৫ পরবর্তী নির্বাসনের সেই দিনগুলির স্মৃতিচারণ করেন জাতির জনকের কন্যা।
কান্নাজড়িত কন্ঠে বিভীষিকাময় ১৫ আগস্টের কথা স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আজকে বাবা নেই, কিন্তু নিশ্চয় তিনি বেহেশত থেকে দেখেন তাঁর মানুষ ভালো আছে।

শেখ হাসিনার কান্নায় উপস্থিত সবার চোখ ভিজে যায় জলে।

hasina-1

পঁচাত্তরের ১৫ই আগস্ট, চির কান্না আর শোকের দিন। বাঙালির ঠিকানা ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যা করে একদল নরপিশাচ। অন্ধকারে ডুবে যায় পুরো জাতি। ১৯৮১ সালের এই দিনে দীর্ঘ নির্বাসন থকে দেশে ফিরে আসেন বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা। বাঙালিকে দেখান আলোর পথ।
শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে আওয়ামী লীগ নেতারা বললেন, আওয়ামী লীগ সভাপতি বাঙালির পথের দিশা।
৭৫ এ দেশের বাইরে থাকায় বেঁচে যান শেখ হাসিনা ও তাঁর ছোট বোন শেখ রেহানা। ওই সময় স্বামী ডক্টর ওয়াজেদ মিয়ার সঙ্গে তিনি ছিলেন জার্মানিতে। শেখ রেহানাও ছিলেন তাঁর সঙ্গে।

এরপর বিভিন্ন দেশ বহু বছর নির্বাসনে কেটেছে স্বাধীনতার মহানায়কের কন্যার।
ভারতেও ছিলেন বহুদিন। অবশেষে ১৯৮১ সালের এই দিনে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লী থেকে ইন্ডিয়ান এয়ালাইন্সের একটি বিমানে কলকাতা হয়ে ঢাকা কুর্মিটোলা বিমানবন্দরে পৌঁছান। লাখো জনতা স্বাগত জানালো তাদের প্রিয় নেত্রীকে। শ্লোগানে শ্লোগানে প্রকম্পিত হলো ঢাকা শহর।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে