আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > আন্তর্জাতিক > চীনপন্থি নির্বাহীর শপথে হংকং এ বিক্ষোভ

চীনপন্থি নির্বাহীর শপথে হংকং এ বিক্ষোভ

_96758516_xicarrie

প্রতিচ্ছবি ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক:

হংকং সরকারের প্রধান নির্বাহী পদে নির্বাচিত নেতা ক্যারি লাম শপথ নিয়েছেন চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিংপিং এর কাছে। আবার অন্যদিকে হংকং এ চলছে চীনা আধিপত্যর অবসানের লক্ষ্যে বিক্ষোভ।

হংকংজুড়ে চলছে গণতন্ত্রপন্থীদের বিক্ষোভ আর তার মাঝেই শপথ নিলেন মহিলা নেতা ক্যারি ল্যাম। ২০ বছর আগে হংকংকে চীনের কাছে হস্তান্তর করে ব্রিটিশরা। ‘স্বাধীনতা’র ২০ বছর পূর্তি উৎসবে উপস্থিত থাকার জন্য প্রথমবারের মতো হংকং সফরে গেছেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। সাজিয়ে গুছিয়ে অভ্যর্থনা জানিয়েছে হংকং। একসাথে উত্তোলন হয়েছে দুদেশের পতাকা।  তবে সেখানকার বেইজিং বিরোধীরা গণতন্ত্রের দাবিতে আন্দোলন করছেন।

বিবিসি জানিয়েছে, বিক্ষোভকারীদের অনেককে আটকের পর আবার ছেড়ে দেয়া হয়েছে। নতুন করে আবার অনেককেই আটক করা হয়েছে। নিরাপত্তা রক্ষার কথা বলে শহরের অনেক গুরুত্বপূর্ণ জায়গা বন্ধ করে রাখা হয়েছে। প্রো-ডেমোক্রেসি পার্টির ডেমোসিস্টো বলছেন, তাদের দলের পাঁচজন সদস্য এবং সোশ্যাল ডেমোক্রাটদের চারজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

_96759070_xichoppersবিবিসির হংকং প্রতিনিধি জুলিয়ানা লিউ টুইটারে জানান,  পুলিশের সাথে জনতার দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হচ্ছে।

গত ৫০ বছর ধরে চলা চীনের ‘এক দেশ, দুই ব্যবস্থা’ নীতির প্রতি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ ওই সংবিধান। হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী নির্বাচনে জনগণের সরাসরি ভোটের ব্যবস্থা নেই। এই নির্বাহী বেইজিংপন্থী এবং শেষমেশ তিনিই নির্বাচিত হলেন। ৫৯ বছর বয়সী ক্যারি লাম বলেছিলেন, তিনি হংকংয়ের ‘এক দেশ, দুই ব্যবস্থা’ নীতি বহাল রাখবেন। সেখানকার মৌলিক মূল্যবোধগুলোর সুরক্ষা দেবেন। এসবের মধ্যে রয়েছে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা ও স্বাধীন বিচার বিভাগ।

হংকংয়ের রাজনীতি-অর্থনীতিসহ যাবতীয় বিষয়ে চীন সবসময় শাসকের ভূমিকা পালন করছে। হংকং এর মানুষের স্বাধীনতা বলে কিছু নেই। তারা তাদের স্বতন্ত্র সরকার ও অন্যদেশের নাক গলানো থেকে মুক্তি চায় বলেই বিক্ষোভ করছে। তবে চীন সেসব অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে