আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > খেলাধুলা > বিশ্বকাপে খেলতে জয়ের বিকল্প নেই আর্জেন্টিনার

বিশ্বকাপে খেলতে জয়ের বিকল্প নেই আর্জেন্টিনার

বিশ্বকাপে খেলতে জয়ের বিকল্প নেই আর্জেন্টিনার

প্রতিচ্ছবি ক্রীড়া ডেস্ক:

দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের বাছাইপর্বে গত সপ্তাহে পেরুর সঙ্গে ঘরের মাঠে ড্র করে পয়েন্ট টেবিলের ষষ্ঠ স্থানে নেমে গেছে আর্জেন্টিনা। আর তাতে ১৯৭০ সালের পর প্রথম বিশ্বকাপে উঠতে না পারার শঙ্কায় পড়ে গেছে দুবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

বুধবার বাংলাদেশ সময় সকাল সাড়ে পাঁচটায় শুরু হবে একুয়েডর-আর্জেন্টিনা ম্যাচটি।

বাছাইপর্বের শীর্ষস্থানধারী ব্রাজিলের পয়েন্ট ৩৮। দ্বিতীয় স্থানে থাকা উরুগুয়ের পয়েন্ট ২৮। ২৬ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে চিলি। কলম্বিয়ার পয়েন্টও ২৬, তাদের গোল পার্থক্যও সমান, তবে কম গোল করায় পিছিয়ে কলম্বিয়া।

পঞ্চম স্থানে থাকা পেরুর পয়েন্ট ২৫। আর্জেন্টিনার পয়েন্টও তাই; দুই দলের গোল ব্যবধানও সমান। তবে কম গোল করায় পিছিয়ে আছে সাম্পাওলির দল।

এই অঞ্চল থেকে সেরা চার দল সরাসরি খেলবে আগামী বছরের বিশ্বকাপে। পঞ্চম দলটির সুযোগ পেতে হলে প্লে-অফ খেলে জিততে হবে ওশিয়ানিয়া অঞ্চলের চ্যাম্পিয়ন নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে।

অবশ্য বিশ্বকাপ ভাগ্য নিজেদের হাতেই আছে আর্জেন্টিনার। শেষ রাউন্ডে তাদের উপরে থাকা দুই দল পেরু ও কলম্বিয়া বুধবার একই সময়ে মুখোমুখি হবে। এই ম্যাচ ড্র হলে আর্জেন্টিনা একুয়েডরকে হারাতে পারলে সরাসরিই পাবে রাশিয়ার টিকেট।

আর আর্জেন্টিনার জয়ে পেরু ও কলম্বিয়ার মধ্যে যারা হারবে তারা চলে যাবে আর্জেন্টিনার নিচে। ফলে অন্য সব ম্যাচে যে ফলই হোক না কেন জিততে পারলে অন্তত পঞ্চম স্থানে থেকে প্লে-অফ খেলার সুযোগ পাবে লিওনেল মেসির দল।

আবার একই সময়ে হতে যাওয়া ম্যাচে ব্রাজিলের মাঠে চিলি জিততে না পারলে আর্জেন্টিনা নিজেদের ম্যাচে জিতলে শীর্ষ চারে থেকে সরাসরি বিশ্বকাপ খেলার টিকেট পাবে।

যেকোনো হিসেবেই একুয়েডরের মাঠে আর্জেন্টিনার সামনে জয়ের বিকল্প নেই। সাম্পাওলির অবশ্য আত্মবিশ্বাসে কোনো কমতি নেই।

“এটা আমাদের উপর নির্ভর করছে। আমি খুবই আত্মবিশ্বাসী যে, আমরা যদি দৃঢ় প্রত্যয়ের সঙ্গে খেলি যেমনটা পেরুর বিপক্ষে খেলেছিলাম তাহলে আমরা বিশ্বকাপে যাচ্ছি।”

মহাগুরুত্বপূর্ণ এ ম্যাচে নামার আগে প্রতিপক্ষের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স লিওনেল মেসিদের জন্য কিছুটা আশা জাগানিয়া। আগেই বিশ্বকাপে ওঠার লড়াই থেকে ছিটকে পড়া একুয়েডর বাছাইপর্বে নিজেদের শেষ পাঁচ ম্যাচ হেরেছে।

তবে মেসিদের খেলতে হবে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ২ হাজার ৮০০ মিটার উচ্চতায় কিটোতে, যেখানে খেলাটাই বাইরের কারও জন্য কষ্টকর। এখানে ২০০১ সালের পর থেকে একুয়েডরকে হারাতে পারেনি আর্জেন্টিনা।

সাম্পাওলি অবশ্য অতীত নিয়ে ভাবছেন না। খুব প্রয়োজনের মুহূর্তে মেসি-মাসচেরানোরা ঘুরে দাঁড়াতে প্রস্তুত বলে মনে করেন তিনি।

“দলের সবাই খুব তেতে আছে। ভাবছে তারা যদি জিততে পারে তাহলে বাছাইপর্ব উতরে যাবে। দলের সবার মধ্যে একটা দৃঢ় প্রত্যয় কাজ করছে যা আমাকে খুব উদ্বুদ্ধ করছে। আমরা (সাফল্যের) খোঁজ করতে থাকব যেমনটা ভেনেজুয়েলা ও পেরুর বিপক্ষে করেছি।”

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান / বিবিসি

এম এম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে