আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > অপরাধ > রাজশাহীর গোদাগাড়ী জঙ্গি অভিযান; সুমাইয়ার আত্মসমর্পণ

রাজশাহীর গোদাগাড়ী জঙ্গি অভিযান; সুমাইয়ার আত্মসমর্পণ

rajshahi-militant-dormito20170511111545

১১ মে, ২০১৭

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক
রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার হাবাসপুরে জঙ্গি আস্তানা ঘিরে চলমান অভিযানে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর আহ্বানে শেষ পর্যন্ত সাড়া দিয়েছেন সুমাইয়া বেগম (২৫)।
পুলিশের আহ্বানের প্রায় তিন ঘণ্টা পর বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা ৪০ মিনিটে আত্মসমর্পণ করেন সন্দেহভাজন এ নারী জঙ্গি।
রাজশাহীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুমিত চৌধুরী সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, সুমাইয়াকে আত্মসমর্পণের জন্য প্রথম থেকেই আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারীরা মাইকে আহ্বান জানিয়ে আসছিল। তিনি সাড়া দিচ্ছিলেন না। দীর্ঘ তিন ঘণ্টা পর সকাল ১০টা ৪০ মিনিটের দিকে তিনি আত্মসমর্পণ করেন। এর আগে ওই বাসা থেকে উদ্ধার করা হয় সুমাইয়া বেগমের ছয় বছরের ছেলে জুবায়ের এবং দেড় মাসের শিশুকন্যাকে আফিয়া।
এর আগে সকাল পৌনে ৮টার দিকে ওই আস্তানায় পুলিশ অভিযান চালালে কয়েকজন জঙ্গি বেরিয়ে আত্মঘাতি বোমা বিস্ফোরণ ঘটায়। এতে মারা যান তারা। তখন থেকেই বাইরে বসে ছিলেন সুমাইয়া। ধারণা করা হচ্ছিল, অন্যদের মতো তিনিও ‘সুইসাইড ভেস্ট’ (আত্মঘাতী বন্ধনী) পরে অবস্থান করছেন।
এই অভিযানে এখন পর্যন্ত ছয়জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে পাঁচজন জঙ্গি বলে জানিয়েছে পুলিশ। এরা হলেন, গৃহকর্তা সাজ্জাদ হোসেন (৫০), তার স্ত্রী বেলি বেগম (৪৮), মেয়ে কারিমা খাতুন (১৭), ছেলে সোয়াইব হোসেন (২৪) ও আল-আমীন (২৬)। এদের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নেয়া হয়েছে।
এছাড়া গোদাগাড়ী ফায়ার স্টেশনের কর্মী আব্দুল মতিনও এ সময় জঙ্গি হামলায় নিহত হন। ঘটনায় গোদাগাড়ী মডেল থানার সহকারী উপপরিদর্শক উৎপল (৩৫) ও পুলিশ কনস্টেবল তাজুল ইসলাম (৪০) আহত হন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে